fbpx
হেডলাইন

নোটিশ পাই, পড়ি, ছিঁড়ে ফেলি

কমিশন সম্পর্কে প্রিয়াঙ্কার মন্তব্যে নিন্দার ঝড়

শরণানন্দ দাস
কলকাতা, ১৬সেপ্টেম্বর:

প্রচারে বেরিয়ে মেজাজ হারিয়ে বেফাঁস মন্তব্য প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়ালের। আর তাতেই বিপাকে ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী। বৃহস্পতিবার তিনি ভবানীপুরের বিভিন্ন এলাকায় বাড়ি বাড়ি প্রচারে যান। সেই সময়েই তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশকর্মীদের সঙ্গে বচসা বাধে প্রিয়াঙ্কার। তর্কাতর্কির মধ্যেই ওঠে সম্প্রতি তাঁকে দেওয়া নির্বাচন কমিশনের চিঠির প্রসঙ্গও। তখনই তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘ওই রকম চিঠি ১০০টা পাই, ১৫০টা পড়ি, ২০০টা ছিঁড়ি।’ বিজেপি প্রার্থীর নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশে করা এই মন্তব্য্যকে ঘিরে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।
ঠিক কী ঘটেছিল এই দিন? প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে থাকা কলকাতা পুলিশের কর্মীদের পরনে সাধারণ পোশাক নিয়ে আপত্তি তোলেন বিজেপি প্রার্থী। তাঁর দাবি ছিল, পুলিশের উর্দিতে না থাকলে মনে হবে আমি কোভিড বিধি ভেঙে অনেককে নিয়ে ঘুরছি। তা ছাড়া তিনি কলকাতা পুলিশের কাছে নিরাপত্তাও চাননি বলে জানান প্রিয়াঙ্কা। পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, তাঁরা নিয়ম মেনেই দায়িত্ব পালন করছেন।
বৃহস্পতিবার সকালে ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রের অলিগলিতে ঘুরে প্রচার চালান বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল। তাঁর দাবি, বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কথা মাথা রেখে মাত্র চারজনকে সঙ্গে নিয়ে প্রচারে বেরিয়েছেন তিনি। তবে যাতে তাঁর বিরুদ্ধে কোভিডবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তোলা যায়, সে কারণে ভোটপ্রচারের সময় সাদা পোশাকের পুলিশ ভিড় জমাচ্ছেন। তিনি কোথায় যাচ্ছেন, কী করছেন সে সংক্রান্ত পুঙ্খানুপুঙ্খ তথ্য শাসকদলের হাতে পৌঁছে দেওয়ার জন্যই পুলিশ এই কাজ করছেন। পুলিশি নিরাপত্তার প্রয়োজন নেই বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা।
ঠিক এই সময়ে জনৈক ভোটার প্রশ্ন করেন, ‘ঘরের মেয়ে’র নির্বাচনী কেন্দ্রে মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট নেওয়ার চেষ্টা কেন করছেন বিজেপি প্রার্থী? ওই ভোটারকে প্রথমে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেন প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল। প্রার্থীর সঙ্গে বচসা চলাকালীন স্থানীয় ভোটাররা আরও একবার ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দেন তাঁকে। তাতে কিছুটা অস্বস্তিতে পড়ে যান তিনি। ঠিক এই সময়ে সংবাদ মাধ্যমের প্রশ্নে মেজাজ হারিয়ে নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্য্য করে বসেন।
প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল বলেন, ‘আসলে তৃণমূল আমাকে ভয় পেয়েছে। তাই যেভাবে হোক আমার প্রচার আটকাতে চাইছে। এটাই ওদের স্ট্র‌্যাটেজি। তৃণমূল মিথ্যা অভিযোগ করেছে আমার বিরুদ্ধে। পুলিশ তো ওখানে ছিল, কেন লোকেদের সরায়নি। আমার কোনও লোক ছিল না। এরকম নোটিস দিনে আমি একশো পাই, দেড়শো পড়ি, দু’শো ছিঁড়ি।’
বিজেপি প্রার্থীর এই মন্তব্যে ইতিমধ্যেই দানা বেঁধেছে বিতর্ক। একজন প্রার্থী তথা আইনজীবীর কাছে এহেন আচরণ কাম্য নয় বলেই মন্তব্য করছেন তৃণমূল নেতারা। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তিনি বলেন, ‘এটাই বিজেপির সংস্কৃতি। এটা কমিশনের সম্মানে আঘাত।’ বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদারের কথায়, ‘বিজেপি কোনও দিন কমিশনকে অপমান করে না। কমিশন আমাদের কাছে সম্মাননীয়, গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সবসময় কমিশনের নোটিসকে গুরুত্ব দিই।’ তবে প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল ঠিক কী বলেছেন, তা জানা নেই বলেই দাবি জয়প্রকাশ মজুমদারের।

Related Articles

Back to top button
Close