fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

১০ নভেম্বর নন্দীগ্রাম চলো, ‘আমরা দাদার অনুগামী’ পোস্টার ঘিরে নদিয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্য

শ্যামল কান্তি বিশ্বাস, কৃষ্ণনগর: ১০ নভেম্বর নন্দীগ্রাম চলো সমাজসেবী শুভেন্দু অধিকারীর ডাকে, আমরা দাদার অনুগামী। নদীয়া জেলাব্যাপী এই ফ্লেক্স ও পোস্টার ঘিরে রাজনৈতিক চাপান উতোর শুরু হয়েছে। ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে তৃণমূলের অভ্যন্তরে।দলে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সহ সমান্তরাল নেতৃত্ব উঠে আসার  বহিঃপ্রকাশে এই ফ্লেক্স বলে অভিমত রাজনৈতিক কারবারিদের। কৃষ্ণনগর জেলা শহর সহ বেথুয়াডহরী, রানাঘাট,চাকদাহ প্রভৃতি বিভিন্ন এলাকার ব্যাপকভাবে চোখে পড়লো শুভেন্দু অধিকারীর সমর্থনে,আমরা দাদার অনুগামীদের এই পোস্টার।

বিষয়টি জানতে যোগাযোগ করা হলে জেলা তৃণমূল নেতা শ্রীবাস সিকদারের সঙ্গে তিনি জানান, ‘আমাদের দলে দাদার অনুগামী বলে কিছু হয়না, আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়,আমরা সকলে তারই অনুগামী, আমরা যারা তৃণমূল কংগ্রেস দলটি করি তাদের এর বাইরে দ্বিতীয় কোনও পরিচয় নেই। তবে এই ধরনের পোস্টার যদি  কোথায়ও লাগানো হয়ে থাকে যাবে নিশ্চিতভাবে দলের পক্ষ থেকে কেউ লাগায়নি। ব্যক্তিগতভাবে কারো কাউকে ভালো লাগতে পারে কিংবা সুসম্পর্ক থাকতেই পারে তবে সেক্ষেত্রে বিষয়টি ব্যক্তিগত পর্যায়ের দল তার দায় নেবে না। তবে এধরনের কাজ আমাদের দলের মধ্যে থেকে করতে পারে না, নিশ্চিতভাবে তৃণমূলে বিভাজন সৃষ্টির প্রয়াসে বিজেপি দলের কুকীর্তি ও হতে পারে, মন্তব্য শ্রীবাস বাবুর।

ঘটনার প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন বিজেপি নেতা এক্স ডি,সি (সীমান্ত রক্ষী বাহিনী) সুনীল কুমার বিশ্বাস। তিনি জানান, বিজেপি দল একটি সুসংঘবদ্ধ,শৃঙ্খলা পরায়ন,দেশের সর্ববৃহৎ গনতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। এখানে তৃনমূলের মতো প্রোমোটার রাজ্ চলেনা।ফলে এই ধরনের নিন্ম মানসিকতার কাজ তৃণমূলের পক্ষেই শোভা পায় এবং বিজেপি এই ধরনের ব্যক্তিগত পর্যায়ের ছোটখাটো বিষয়ে নাক গলায় না।

Related Articles

Back to top button
Close