fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শিশু শিক্ষা কেন্দ্র থেকে মিড ডে মিলের ১০ বস্তা চাল চুরি, তদন্তে পুলিশ

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান:  লকডাউন চলাকালীন রাতের অন্ধকারে শিশু শিক্ষা কেন্দ্র থেকে মিড-ডে মিলের ১০ বস্তা চাল চুরি করে নিয়ে পালালো দুষ্কৃতীরা। দরজার তালা ভেঙে ঢুকে চাল চুরিকরে নিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর থানার জৌগ্রাম ইলসেগড়িয়া শিশু শিক্ষা কেন্দ্রে।

চাল চুরির বিষয়টি বুধবার সকালে শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের এক রান্নার কর্মীর প্রথম নজরে আসে। তিনি শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের সহায়িকাদের ঘটনার কথা জানান। সহায়িকারা এসে চাল চুরির ঘটনা চাক্ষুষ করার পরেই জামালপুর থানায় খবর দেন। এই ঘটনা জানাজানি হতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। চাল চুরির ঘটনার তদন্তে শিশু শিক্ষা কেন্দ্রে যায় পুলিশ। কর্তৃপক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

শিশু শিক্ষাকেন্দ্রের প্রধান সহায়িকা রীণা চট্টোপাধ্যায় বলেন, তাঁদের পড়ুয়া সংখ্যা ১০০ জন। করোনা মোকাবিলা সংক্রান্ত সরকারি নির্দেশ মেনে ১৬ মার্চ থেকে স্কুল বন্ধ রয়েছে। তারপর নিয়মমাফিক মার্চ মাসে প্রতি পড়ুয়াকে ২ কেজি চাল ও ২ কেজি আলু দেওয়া হয়েছিল। এপ্রিলে ৩ কেজি করে চাল ও ৩ কেজি আলু দেওয়া হয়। উদ্বৃত্ত দশ বস্তা চাল শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের স্টোর রুমে থেকে যায়। মঙ্গলবার রাতের অন্ধকারে স্টোর রুমের দরজার তালা ভেঙে দুষ্কৃতীরা ১০ বস্তা চালই চুরি করে নিয়ে গেছে।

রীণাদেবী বলেন, বুধবার সকালে স্কুলের মিড-ডে মিল রান্নার কর্মী স্টোর রুমের দরজার তালা ভাঙা দেখে তাঁকে খবর দেয়। তিনি এবং দ্বিতীয় সহায়িকা গোধূলিকা ঘোষ শিশু শিক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে দেখেন উদ্বৃত্ত ১০ বস্তা চাল স্টোর রুমে নেই। মিড-ডে মিল রান্নার কাজের জন্য কেনা একটি নতুন বালতিও দুষ্কৃতীরা নিয়ে চলে গেছে। রীণা চট্টোপাধ্যায় বলেন, চুরির ঘটনা বিষয়ে এদিন দুপুরে তিনি জামালপুর থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ জানিয়ে এসেছেন। জামালপুর থানার পুলিশের এক কর্তা বলেন, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close