fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

চিনের বেআইনি নজরদারিতে ১০ হাজার ভারতীয়, তালিকায় রাষ্ট্রপতি, মোদি, মমতা, সচিনসহ একাধিক বিশিষ্ট জন

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: চিন ভারত সীমান্তে টানটান উত্তেজনা। পাশাপাশি দেশের মানুষের তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার আশঙ্কায় সুরক্ষা ইস্যুতে একাধিক চিনা অ্যাপ দেশে নিষিদ্ধ করেছে ভারত সরকার। এমনকি শুরু চিনা দ্রব্য বর্জনের হিড়িক। এরই মধ্যে এক বিস্ফোরক তথ্য সামনে এল। যা রীতিমতো সুরক্ষা নিয়ে চিন্তায় ফেলে দিল ভারত সরকারকে। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, ভারতের ১০ হাজার প্রভাবশালী ব্যাক্তির উপর নজর রাখছে চিন।

এই তালিকায় রয়েছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, তাঁর স্ত্রী যশোধা বেন, মনমোহন সিং ও তার পরিবার, কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও তাদের পরিবারের সদস্য। এমনকি তালিকায় নাম রয়েছে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরও। রয়েছে সিডিএস বিপিন রাওয়াত, ১৫ প্রাক্তন সেনা প্রধান, নৌসেনা প্রধান ও বায়ুসেনা প্রধান, লোকপালের বিচারপতি, ক্যাগ প্রধান জি সি মুর্মু, প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে-সহ সুপ্রিম কোর্টের অন্যান্য বিচারপতিরা, রাজনাথ সিং, রবিশঙ্কর প্রসাদ, নির্মলা সীতারমন, স্মৃতি ইরানি, অমরেন্দ্র সিং, উদ্ধব ঠাকরে, নবীন পট্টনায়ক, শিবরাজ সিং চৌহান।

আরও জানা গিয়েছে, চিনের নজরদারিতে রয়েছে, শিল্পপতি রতন টাটা, গৌতম আদানি, বিনিয়োগকারী নিপুন মেহেরা, ভারত পে’র প্রতিষ্ঠাতা-সহ ভারতের বিশিষ্ট শিল্পপতিরা। এছাড়াও সচিন তেন্ডুলকরসহ একাধিক ক্রিকেটার, সাংবাদিক, বিজ্ঞানী, সিনেমা, সাংস্কৃতিক জগৎ সহ একাধিক ক্ষেত্রে স্বনামধন্য মানুষের নাম আছে এই তালিকায়। যা প্রকাশ্যে আসতেই রীতিমতো চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে দেশের অন্দরে।

ওই তদন্তমূলক প্রতিবেদন অনুযায়ী, চিনের সেনঝেনের তথ্যপ্রযুক্তি কোম্পানি ঝেনহুয়া ডেটা ইনফরমেশন টেকনোলজি কোম্পানি লিমিটেড ওই কাজ করছে। ওই কোম্পানিটির সঙ্গে সরাসরি যোগ রয়েছে চিন সরকার ও চিনা কমিউনিস্ট পার্টির। ঝেনহুয়াও স্বীকার করে তারা চিনা সরকার ও চিনা গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে কাজ করে। শুধু তাই নয়, ওই চিন কোম্পানির নজরে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, জাপান, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, জার্মানির মতে দেশও।

Related Articles

Back to top button
Close