fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

ঝুঁকিহীন রোগীদের জন্য ১০৪ সেফ হোম সেন্টার, ডাক্তারি পড়ুয়াদের জন্য , বড় ঘোষণা মমতার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্যের চিকিৎসক পড়ুয়াদের জন্য একগুচ্ছ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার থেকে কোভিডে যাঁরা কাজ করছেন, তাঁদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হবে। তাঁরা সকলেই ডিফিকাল্ট এরিয়া ওয়েটেজ পাবেন। পিজিটি’তে যাঁরা আছেন, তাঁরা এই কাজ করলে প্রতি বছর ১০ শতাংশ করে ইনসেনটিভ পাবেন। হাউজস্টাফের সংখ্যা বাড়ানোর ভাবনা চলছে। সিনিয়র রেসিডেন্টের সংখ্যা বাড়ানো হবে। সব ডাক্তারির ছাত্রকেই কাজে লাগানো হবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

রাজ্যে ঠিকমতো করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে না বলে বারবার অভিযোগের সুর চড়িয়েছে বিরোধীরা। তবে এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের বর্তমান করোনা পরিস্থিতির খতিয়ান তুলে ধরেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘এপ্রিলের শেষ পর্যন্ত রাজ্যে ১৬ হাজার ৫০০টি করোনা পরীক্ষার ল্যাব ছিল। তবে ধীরে ধীরে ল্যাবের সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। বর্তমানে সাড়ে ৩ লক্ষের বেশি পরীক্ষা হয়েছে। বুধবার পর্যন্ত রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত ৫৭৭৭ জন। মোট সুস্থ ৬৫৩৩ জন।’ রাজ্যে সুস্থতার হার যে যথেষ্ট বেশি তাও জানান মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যে সুস্থ হয়ে ৫০.৬৮ শতাংশ মানুষ।

আরও পড়ুন: রাজ্যবাসীর উচিত সংকটের সময়ে রাজ্য সরকারের পাশে থাকা: রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর

রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ৭৭টি কোভিড হাসপাতাল রয়েছে। তবে বারবারই কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের তরফে নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, মৃদু উপসর্গযুক্ত রোগীদের হাসপাতালে ভরতি হওয়ার কোনও প্রয়োজনীয়তা নেই। এবার তাঁদের জন্য নয়া ব্যবস্থা রাজ্যের। তৈরি করা হল ১০৪টি সেফ হোম সেন্টার। সেখানে একেবারেই মৃদু উপসর্গযুক্ত করোনা রোগীদের রাখা হবে। চিকিত্‍সকরাই তাঁদের চিকিত্‍সা করবেন। এছাড়াও করোনা রোগীদের জন্য আর কত বেড বাকি রয়েছে সে বিষয়ে প্রতিদিন ঘণ্টায় ঘণ্টায় বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে আপডেট দিতে বলেও নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর। বর্তমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বৃহস্পতিবার বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে রাজ্যের মুখ্যসচিবের বৈঠকেরও কথা।

 

Related Articles

Back to top button
Close