fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

এক সঙ্গে করোনায় আক্রান্ত ১৪ জন পুলিশ কর্মী, বন্ধ হল পালসিট ফাঁঁড়ি

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: করোনা যুদ্ধে সামিল মন্ত্রী থেকে শুরু করে ডাক্তার, নার্স , পুলিশ কেউই করোনার থাবা থেকে রেহাই পাচ্ছেন না। এবার করোনা থাবা বসালো একেবারে পূর্ব বর্ধমানের পালসিট পুলিশ ফাঁড়িতে। করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ফাঁড়ির মোট ১৪ জন পুলিশ কর্মী, ১জন চালক ও ১ জন রাধুনি। গত ৭২ ঘন্টায় এতজন পুলিশ কোভিড আক্রান্ত হওয়ায় বন্ধ করে দিতে হল মেমারি থানার অধীন পালসিট পুলিশ ফাঁড়ি। এই ঘটনায় রীতিমত উদ্বিগ্ন জেলা পুলিশের শীর্ষ মহল।

জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গত রবিবার পালসিট ফাঁড়ির ২ পুলিশ কর্মীর করোনা পজিটিভ ধরা পড়ার রিপোর্ট আসে। এরপর সোমবার করোনা পজিটিভ ধরা পড়ার রিপোর্ট আসে ফাঁড়ির আরও ২ পুলিশ কর্মী, ২ সিভিক ভলেন্টিয়ার ও ১ চালকের। গত ২৪ ঘন্টায় ফাঁড়ির আরও ৯ জনের কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার রিপোর্ট এসেছে। এই ৯ জনের মধ্যে রয়েছে ১ পুলিশ অফিসার , ৭ জন সিভিক ভলেন্টি ও ১ রাঁধুনি । সংক্রমন রুখতে ফাঁড়িতে সমস্ত কাজকর্ম বন্ধ করেদিয়ে গোটা পালসিট পুলিশ ফাঁড়ি জীবানু মুক্ত করার কাজ শুরু করেছে ।

স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত জেলায় ১৪৯৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তার মধ্যে ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার জেলায় নতুন করে ৫৪ জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। টানা লকডাউনের পর আনলক ওয়ান পর্বে মেমারি সহ জেলার একাধিক জায়গায় কনটেনমেন্ট জোন করেও সংক্রমণ বৃদ্ধিতে লাগাম টানতে পারা যাচ্ছে না। জেলায় টেস্টের সংখ্যা বেড়েছে। সংক্রমন প্রতিরোধে নানা ব্যবস্থাও নেওয়া হচ্ছে। এত কিছুর পরেও গত এক মাস যাবৎ সংক্রমণ বেড়ে চলায় উদ্বিগ্ন প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর । প্রতিদিন জেলায় কোভিড সংক্রমণ হার উর্ধ্বমুখী হচ্ছে ।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় এই প্রথম কোন পুলিশ কর্মী করোনা আক্রান্ত হলেন এমনটা নয়। ইতিপূর্বে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবং ডিএসপি হেড- কোয়াটার করোনা আক্রান্ত হন। আক্রান্ত হয়েছিলেন জেলার মাধবডিহি ও খণ্ডঘোষ থানার শীর্ষ আধিকারিক। জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়ের নিরাপ্তারক্ষীও করোনা আক্রান্ত হয়।

এছাড়াও বর্ধমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল সহ জেলার অনেক হাসপাতালের চিকিৎসক , নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মী কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন । সম্প্রতি চিকিৎসক , নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মী মিলিয়ে জেলার জামালপুর ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে
৯ জন করোনা আক্রান্ত হন । তার ফলে
বন্ধ হয়ে যায় জামালপুর হাসপাতালের আউটডোর পরিষেবা । পূর্ব বর্ধমান জেলাপরিষদের সহ সভাধিপতি দেবু টুডুর পর মঙ্গলবার রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। তিনি বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে করোনার থাবার সবথেকে বিপর্যস্ত হল পাশসিট পুলিশ ফাঁড়ি । সংক্রমনের প্রভারে এই প্রথম জেলায় কোন পুলিশ ফাড়ি বন্ধ করে দিতে হল ।

এসডিপিও আমিনুল ইসলাম খান জানিয়েছে, পালসিট ফাঁড়িতে সমস্ত কাজ কর্ম বন্ধ রাখা হয়েছে। আক্রান্ত পুলিশ কর্মীদের বেশিরভাগ জনকেই চিকিৎসায় পাঠানো হয়েছে। কয়েকজন হোম আইসোলেশনে রয়েছেন । ফাঁড়ি জীবানু মুক্ত করার কাজ এখনও চলছে।

Related Articles

Back to top button
Close