fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভগবানপুর থেকে ১৫৩ টি তাজা বোমা উদ্ধার, গ্রেফতার এক যুবক

মিলন পণ্ডা, পূর্ব মেদিনীপুর: পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ভগবানপুর থানার বেতুলিয়াচক লালপুরে কলাবাগান থেকে তাজা বোমা উদ্ধারের ঘটনায় এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল পুলিশ। পাশাপাশি ওই কলাবাগান থেকে ১৫৩টি তাজা বোমা উদ্ধার করে পুলিশ। লকডাউনের মাঝে ভগবানপুরে এক সঙ্গে বোমা উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। শুক্রবার রাতে ভগবানপুর থানার পুলিশ অভিযুক্ত সেক কাশেম উদ্দিনকে গ্রেফতার করে। পুলিশের জানিয়ে, ধৃত যুবকের বাড়ি ভগবানপুর থানার লালপুরের বাসিন্দা। শনিবার অভিযুক্তকে কাঁথি আদালতে তোলা হলে বিচারক তার জামিন নাকচ করে ৫ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।

ভগবানপুর থানা সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে লালপুরে হানা দেয় পুলিশ। সেখান থেকে কয়েকটি বোমা উদ্ধার করে। এরপর সেক কাশিম উদ্দিনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। জিজ্ঞাসাবাদের পর গোটা এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে কলাবাগান থেকে ১৫৩ টি তাজা বোমা উদ্ধার হয়। তারপরেই গোটা এলাকা পুলিশি নিরাপত্তা দিয়ে মুড়ে ফেলা হয়। গোটা এলাকায় ব্যারিকেট করে দেওয়া হয়। অবশেষে অভিযুক্ত কাশিমকে গ্রেফতার করে ভগবানপুর থানার পুলিশ।শনিবার সকালের ভগবানপুরে পাঁচ সদস্যদের বোমা ডিস্পোজাল টিম হাজির হয়। পাশাপাশি অ্যাম্বুলেন্স, দমকল ও চিকিৎসকরা উপস্থিত ছিলেন। এদিন সকাল থেকে পুরো পুলিশের নিরাপওার সামনে ডিস্পোজাল কর্মীরা তাজা বোমা গুলি নিষ্ক্রিয় করেন।

আরও পড়ুন: করোনার উৎস প্রাকৃতিক: হু

এগরা মহাকুমা পুলিশ আধিকারিক আক্তার আলি বলেন, শুক্রবার দুপুরে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ভগবানপুরে লালপুরে কলাবাগানটি পুরোটা ঘিরে ফেলা হয়। বাগান থেকে ১৫৩ টি তাজা বোমা উদ্ধার ও এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়। তদন্তে কারনে অভিযুক্তকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। এই ঘটনার আরও কারা কারা যুক্ত রয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, বোমাগুলি কোথা থেকে এলো, কি কারনে বোমাগুলি রাখা হয়েছিল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এদিন সকালে বোম স্কোয়াডের কর্মীরা এসে কেলেঘাই নদীর চরে বোমা গুলি নিষ্ক্রিয় করেন।

যদিও আদালতে য়াওয়ার পথে গ্রেফতার কাশিম উদ্দিন সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, শুক্রবার দুপুরে এলাকার তৃণমুলের পঞ্চায়েত সদস্য বাড়িতে ত্রাণ আনতে গিয়েছিলাম। ঠিক কি কারনে পুলিশ আমাকে গ্রেফতার করেছে জানিনা। পুলিশ আমাকে মিথ্যা মামলার ফাঁসিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close