fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

থানার অফিসার ইন চার্জ সহ ১৮ জন করোনায় আক্রান্ত, বন্ধ কাজকর্ম

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: প্রতিদিনই পূর্ব বর্ধমান জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা । ইতিমধ্যেই জেলার করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ছাড়িয়েছে। এবার পুলিশ আধিকারিক ও কর্মী মিলিয়ে  জেলার
খণ্ডঘোষ থানার  ১৮ জন  করোনায় আক্রান্ত হলেন।

আক্রান্তদের মধ্যে ৪ জনের করোনা উপসর্গ থাকায় তাঁদেরকে ভর্তি করা হয়েছে কোভিড হাসপাতালে । বাকি আক্রান্তদের ‘হোম আইসোলেশনে’ পাঠানো  হয়েছে ।পালসিট ফাড়ির পর খণ্ডঘোষ থানার এতজন পুলিশ কর্মী এক সঙ্গে করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়ায় উদ্বিগ্ন জেলা পুলিশের শীর্ষ মহল ।

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, মাস দেড়েক আগে খণ্ডঘোষ থানার শীর্ষ আধিকারিক করোনা আক্রান্ত হন । চিকিস্থায় সুস্থ হয়ে কিছুদিন আগে তিনি কাজে যোগ দেন । শনিবার ফের তার অ্যান্টিজেন পরীক্ষা হয় । রিপোর্ট আসার পর জানা যায় খণ্ডঘোষ থানার অফিসার ইনচার্য ফের করোনায় আক্রান্ত  হয়েছেন।

করোনা সংক্রমণের কারণে আপাতত খণ্ডঘোষ থানা ভবনে কাজ  বন্ধ রাখা হয়েছে । জীবানু মুক্ত করার কাজ সম্পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত থানা সংলগ্ন একটি অনুষ্ঠান বাড়ি থেকে দৈনন্দিন কাজ চালানোর কথা ভাবছে জেলা পুলিশ প্রশাসন। খণ্ডঘোষ থানা পরিচালনার দায়িত্ব  সিআই (সি ) সঞ্জয় কুণ্ডুকে  দেওয়া হয়েছে । জেলার পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় বলেন, “ পরিষেবা পেতে খণ্ডঘোষের মানুষজনের যাতে কোন অসুবিধা না হয়, তার জন্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।“

স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে , শুক্রবার রাতে  খণ্ডঘোষ থানার ৪ জন পুলিশ অফিসার ও কর্মীর  করোনা পজ়িটিভ রিপোর্ট আসার পরেই উদ্বেগ বাড়ে । সেই কারণে শনিবার ফের পুলিশ  অফিসার ও কর্মী মিলিয়ে ওই থানার ১৮ জনের অ্যান্টিজেন টেস্ট হয় । তাদের মধ্যে ১৪ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে । স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে ,পুলিশ অফিসার , কর্মী ,ড্রাইভার, সিভিক ভলেন্টিয়ার , ভিলেজ পুলিশ সহ সব মিলিয়ে  খণ্ডঘোষ থানায় ৫০ জনের মত রয়েছেন । রবিবার  বাকি সবার করোনা পরীক্ষা হবে ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলায় প্রথম করোনা আক্রান্ত ধরা পড়ে খণ্ডঘোষে । করোনা আক্রান্ত হয়ে খণ্ডঘোষ থানা এলাকার এক বাসিন্দার মৃত্যুও হয় । সংক্রমন প্রতিরোধের জন্য একেবারে সামনের  সারিতে থেকে কাজ করে যাচ্ছেন খণ্ডঘোষ থানার সকল পুলিশ আধিকারিক ও কর্মীরা । নিয়ম মেনে থানার ভবন , পুলিশ গাড়ি  জীবাণু মুক্ত করার কাজ করেও সংক্রমণ রোখা গেল না ।

ইতিপূর্ব জেলা পুলিশের দুই শীর্ষ আধিকারিক , মাধবডিহি থানা ওসি করোনা আক্রান্ত হন ।  চিকিৎসায়  সুস্থ হয়ে তারা কাজে যোগ দিয়েছেন । অতি সম্প্রতি  মেমারি থানার পালসিট পুলিশ ফাঁড়ির ৯ পুলিশ কর্মীর একসঙ্গে করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে ।  তার জন্য পালসিট ফাড়িতে  কাজ কর্ম বন্ধ রাখতে হয় । করোনা যোদ্ধারা এই ভাবে সংক্রমিত হয়ে পড়ায় দুঃশ্চিন্তায় জেলার প্রশাসনিক কর্তারাও ।

Related Articles

Back to top button
Close