fbpx
ব্লগহেডলাইন

গৃহবন্দীর উনিশ…

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: “হৃদয়ে রবীন্দ্রনাথ, চেতনায় উনিশ” – শিলচর সাংস্কৃতিক মঞ্চের গতবারের এই ভাবনার অনুসরণে এবার এভাবেই পশ্চিম বর্ধমানের চিত্তরঞ্জনের দেশবন্ধু মহাবিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ এবং নদীয়ার পলাশী কলেজের শিক্ষাবিজ্ঞান বিভাগ ও বাংলা বিভাগের যৌথ উদ্যোগে গত উনিশে মে ‘বাংলা ভাষাদিবস’ পালন করা হল….অনুষ্ঠানের শুরুতেই ত্রিশ সেকেন্ডের নীরবতা পালনের মধ্যে দিয়ে এই দিনের ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

 

 

এই অনুষ্ঠানে আয়োজক কলেজদুটির অধ্যাপক, ছাত্রছাত্রী ছাড়াও অন্যান্য কলেজ ও বিদ্যালয়ের শিক্ষকেরাও অংশগ্রহণ করেছিলেন। এদের মধ্যে রয়েছেন লালগোলা কলেজের অধ্যাপিকা ডঃ রিঙ্কু সাহা, রাণীগঞ্জ টিডিবি কলেকের অধ্যাপক রাণা ভট্টাচার্য এবং লক্ষ্মীনারায়ণপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা শ্রীমতী শোভনা হাটি। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে সুদূর বরাক উপত্যকা থেকে আনন্দবাজার পত্রিকার সাংবাদিক শ্রী উত্তম সাহার বক্তব্য পরিবেশন বিশেষভাবে উল্লেখ্য।

 

 

গৃহবন্দী অবস্থায় এভাবে অনলাইন মাধ্যমে উনিশে মে দিনটিকে সার্থকভাবে উদযাপন করার প্রয়াস যথেষ্ট প্রশংসনীয়। বিভিন্ন গান, কবিতা ও আলাপ আলোচনার মধ্য দিয়ে বাংলা ভাষার জন্য এই দিনটি পালিত হয়েছে সার্থকভাবে। ‘মোদের গরব মোদের আশা” কিংবা “আমি বাংলায় গান গাই” থেকে “বাংলা আমার সর্ষে ইলিশ” পর্যন্ত বিভিন্ন গান কিংবা ভবানীপ্রসাদ মজুমদারের কবিতার মধ্য দিয়ে বাংলাভাষার প্রতি বাঙালির মনোভাব প্রকাশ পেয়েছে অতি সুন্দরভাবে। অনুষ্ঠানটির মুখ্য উদ্যোক্তা উক্ত দুই কলেজের দুই অধ্যাপিকা ডঃ দেবলীনা চৌধুরী এবং ডঃ দোলা সরকার।

 

 

অন্যান্য অধ্যাপকদের মধ্যে দেশবন্ধু মহাবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ডঃ সাগরচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, শ্রী ব্রজগোপাল গোস্বামী, বিপ্লব চৌধুরী, শ্রীমতী অনন্যা চ্যাটার্জি, অত্রিয়া সরকার, ডঃ শ্রাবণী সাহা প্রমুখেরা উল্লেখের দাবি রাখেন। সকাল সাড়ে এগারোটা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত প্রায় দুঘন্টার সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানটি যথেষ্ট মুন্সিয়ানার দাবি রাখে।

Related Articles

Back to top button
Close