fbpx
কলকাতাবিনোদনহেডলাইন

দুটি সাংস্কৃতিক উদ্যোগ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  সম্প্রতি ত্রিধারা সম্মেলনি ক্লাবে আয়োজিত হয়েছিল হিন্দুস্থান আর্ট ও মিউজিক সোসাইটির বার্ষিক সম্মেলন। ভার্চুয়াল এই সম্মেলনের মূল লক্ষ্য ছিল ভারত সংস্কৃতি উৎসব ২০২০ – এর তারিখ ঘোষণা করা এবং এই অতিমারির পরিস্থিতিতে কী কী নিয়ম মেনে অনুষ্ঠান হবে তার নির্দেশ দেওয়া। আজ থেকে  ১২ বছর আগে  বর্তমান পূর্ব বর্ধমানে শুরু হয়েছিল এই উৎসবের। এবার ১৩ বছরে পা রাখা এই অনুষ্ঠান হবে আগামী ১৫-৩০ ডিসেম্বর, কলকাতার আইসিসআর প্রেক্ষাগৃহে।

এই ভার্চুয়াল মিটিং-এ উৎসবের সভাপতি ড. দেবাশিস কুমার, সম্পাদক পণ্ডিত প্রসেনজিৎ পোদ্দার, বিশিষ্ট নৃত্যগুরু অলোকা কানুঙ্গ, নৃত্যগুরু মধুমিতা রায় সহ অন্যান্যরা অংশ নেন।  পণ্ডিত প্রসেনজিৎ পোদ্দার জানান,  ১৫-৩০ ডিসেম্বর প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এই অনুষ্ঠান চলবে। তবে অংশগ্রহণকারীদের একটি রেজিস্ট্রেশন ফর্ম ভর্তি করতে হবে এবং সঙ্গে পাঠাতে হবে একটি ভিডিও যা বিচারকরা দেখে তাদের মন্তব্য জানাবেন। নৃত্যগুরু অলোকা কানুঙ্গ বলেন। প্রেক্ষাগৃহে ৫০ জনের বেশি দর্শক থাকতে পারবেন না। তবে সারা ভারতের মানুষ ইন্টারনেটের মাধ্যমে ভার্চুয়ালি এই অনুষ্ঠান দেখতে পারবেন। প্রতি বছরের মতো এবছরও অংশগ্রহণকারীরা শংসাপত্র, স্মারক, অর্থমূল্যের পুরস্কার, বারোমাসের বৃত্তি সবই পাবেন – জানান নৃত্যগুরু মধুমিতা রায়।

অন্যদিকে দুর্গাপুজোতে ভার্চুয়ালি মুক্তি পেল এক কবিতার সিডি। শিল্পী প্রথমা সেন।  ১৩টি রবীন্দ্রকবিতায় সমৃদ্ধ এই সিডির শিরোনাম ‘আমি’। ‘আমারই চেতনার রঙে পান্না হল সবুজ/চুণী উঠল রাঙা হয়ে…’এই শব্দ উচ্চারণের মধ্য দিয়ে সিডির সূচনা। তারপর একে একে শিল্পী প্রথমা বলেছেন, ‘বাঁশিওয়ালা’, ‘সবলা’, ‘সাধারণ মেয়ে’, ‘ওরা কাজ করে’, ‘শঙ্খ’ প্রভৃতি কবিতা। বর্তমান পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে ‘ভারততীর্থ’ এবং ‘দুঃসময়’ কবিতা দুটি খুবই প্রাসঙ্গিক। শিল্পীর সুরহীন স্পষ্ট উচ্চারণে কবিতাগুলি শুনতে মন্দ লাগে না। ভাবনা রেকর্ডস থেকে মুক্তি পাওয়া এই সিডির সবকটি কবিতা শোনা যাচ্ছে ইউটিউবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close