fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সাগরে পঞ্চায়েত লুটের ঘটনায় ধৃত ২০

বিশ্বজিত হালদার, সাগর:‌ সাগরের ধসপাড়া-‌সুমতিনগর ১ নম্বর গ্রামপঞ্চায়েতের ভেতরে ঢুকে প্রধান, উপপ্রধান সহ পঞ্চায়েতের কর্মচারীদের মারধরের পাশাপাশি সামগ্রী ভাঙচুর ও লুটপাঠের ঘটনার ২০ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করল পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে বেশ কয়েকজন মহিলা আছে।

 

 

 

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতরা সকলেই পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা। ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধি ৪৫২, ১৮৮, ৩৩২, ৩৩৫, ৩২৫, ৩২৬, ৩০৭, ৩৫৪বি, ৩৭৯, ৪২৭, ৪৩৬, ১২০বি, ৫১বি ৩পিডিপিপি ধারা সহ জাতীয় বিপর্যয় আইনে মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ধৃতদেরকে মঙ্গলবার দুপুরে কাকদ্বীপ মহকুমা আদালতে তোলা হলে শ্রীমন্ত মুনিয়ান, প্রলয় জানা, সেখ মহিউদ্দিন ও শঙ্কর মাইতিকে ৭ দিনের পুলিশ হেফাজত ও বাকি ষোলজন অভিযুক্তকে ১৪ দিনের জেল হেপাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। সোমবার ঘটনার পর পঞ্চায়েতের সদস্যের অভিযোগের ভিত্তিতে ১২৬ জনের নামে মামলা রুজু করেছিল পুলিশ।

 

 

তবে রাত পর্যন্ত ২০জনকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি ধৃতদের বাড়ি থেকে পঞ্চায়েত থেকে লুঠ হয়ে যাওয়া চার বস্তা চাল ও ডাল সহ বেশকিছু ত্রাণ সামগ্রি উদ্ধার করে পুলিশ। তবে ঘটনার পর থেকে বাকিরা এলাকা ছেড়ে গা ঢাকা দিয়েছে। ধৃতদের জেরা করে বাকি অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। অন্যদিকে এই ঘটনা নিয়ে সাগরজুড়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। সোমবার বিক্ষোভকারীদের হাতে তৃণমূলের পতাকা ছিল। আক্রান্ত পঞ্চায়েত সদস্য, পঞ্চায়েত প্রধানও দলের কর্মী-‌সমর্থকদের হাতে আক্রান্ত হওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। কিন্তু বিধায়ক বঙ্কিম হাজরা এই ঘটনায় বিজেপির দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। বিজেপি নেতা রাজু মণ্ডল এই অভিযোগ অস্বীকার করে বঞ্চিত মানুষদের বিক্ষোভের কথা বলেছেন। সাগরের অন্য পঞ্চায়েতের মানুষও ত্রাণ নিয়ে স্বজনপোষণের অভিযোগ তুলেছেন।

Related Articles

Back to top button
Close