fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ, ঘোষণা কেন্দ্রের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কপঞ্চম দফার লকডাউন এর মধ্যেই দ্বিতীয় মোদি সরকারের প্রথম ক্যাবিনেট বৈঠক হয়। কেন্দ্রের নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক বিষয়ক কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। জানা গিয়েছিল বেশকিছু ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে এই বৈঠকে। অবশেষে বৈঠক শেষে এই সাংবাদিক সম্মেলনে একাধিক ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকর, নিতিন গড়কড়ি এবং নরেন্দ্র তোমার। দেশজুড়ে করোনা সংক্রমনের পরিস্থিতিতে লকডাউন এর ফলে অর্থনীতি প্রায় স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প এবং ছোট ব্যবসায়ীরা যথেষ্ট সমস্যার মধ্যে পড়েছেন। এর আগেও মোদি সরকার লকডাউন এর ফলে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ ঘোষণা করেছেন।

গত কয়েকমাসে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প, কৃষিকার্যের সঙ্গে যুক্ত অসংখ্য মানুষ ক্ষতির মুখ দেখেছে। আর সেই কারণেই একদিকে যেমন কৃষকদের কথা ভেবে একাধিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তেমনই ক্ষুদ্র এবং মাঝারি ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত মানুষদের জন্য আর্থিক অনুদানের ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিতিন গড়কড়ি জানিয়েছেন, এমএসএমই-র জন্য ২০ হাজার কোটি টাকা অনুমোদন করেছে কেন্দ্র। এর ফলে কমপক্ষে দু লক্ষ এমএসএমই উপকৃত হবে। দেশের সমস্ত কৃষকরা ঋণ শোধ করবার জন্য অনেক বেশী সময় পাবেন।

আরও পড়ুন: তথ্য গোপন করে পরিস্থিতি মোকাবিলা করা অসম্ভব। ডেরেককে তোপ রাজ্যপালের

এই প্যাকেজে হকারদের ১০ হাজার টাকা করে ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ফলে ৫০ লক্ষ ফুটপাতের দোকানদাররা উপকৃত হবেন। এছাড়াও ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা করা হয়েছে। যে সমস্ত সংস্থার বার্ষিক লেনদেন ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত সেগুলোকেও ছোট শিল্পের আওতাভুক্ত করা হয়েছে ।এতদিন পর্যন্ত ২৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত মূলধনের শিল্পগুলি ক্ষুদ্র শিল্পের আওতাভুক্ত ছিল। এবার সেটাকে বাড়িয়ে ১ কোটি টাকা পর্যন্ত মূলধনের শিল্পগুলি এবং বার্ষিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ৫০ কোটি টাকা পর্যন্ত ক্ষুদ্র শিল্পের আওতাভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close