fbpx
দেশহেডলাইন

দেশে একদিনেই সংক্রামিত ২২ হাজার!

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সময়ের সঙ্গে সঙ্গেই দেশে করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। গত শুক্রবার অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে সংক্রমণের নিরিখে নয়া রেকর্ড তৈরি হয়েছে। একদিনেই মারণ ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ২২ হাজারের বেশি। পরিসংখ্যান সংক্রান্ত ‘ওয়ার্ল্ডোমিটার’-এর তথ্য অনুযায়ী, একদিনে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ২২ হাজার ৩২৪ জন। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৪৭ হাজার ৮৬৮ জন। করোনার মৃত্যু হয়েছেন ৪৪৪ জন। ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৬৫৭ জনে।

মহারাষ্ট্রে পরিস্থিতি যথেষ্টই উদ্বেগজনক। শুক্রবারও নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৬ হাজার ৩৬৪ জন। এই নিয়ে টানা দু’দিন রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গেল। মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৯২ হাজার ৯৯০ জন। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন আরও ১৯৮ জন। এ নিয়ে করোনার বলি হলেন ৮ হাজার ৩৭৬ জন। নতুন করে সুস্থ হয়ে উঠেছেন মাত্র ৩ হাজার ৫৬৫ জন। মোট করোনা জয় করে বাড়ি ফিরেছেন এক লাখ চার হাজার ৬৮৭ জন।

দেশে মহারাষ্ট্রের পরেই করোনার নিরিখে তালিকায় দ্বিতীয় নম্বরে রয়েছে তামিলনাড়ু। এবার সেই রাজ্যেও আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেল ১ লক্ষের গণ্ডি। মৃত্যু হয়েছে ১৩৮৫ জনের।  সরকারি তথ্য বলছে শুক্রবার তামিলনাড়ুতে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪,৩২৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৪ জনের। ফলে লাফিয়ে ১ লক্ষ ছাড়িয়েছে সংক্রমণ। পরিসংখ্যান জানাচ্ছে, তামিলনাড়ুতে বর্তমানে মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এমন মানুষের সংখ্যা ১ লক্ষ ২ হাজার ৭২১ জন। যার মধ্যে প্রায় ৫৮ হাজার মানুষ সুস্থ হয়ে গিয়েছেন। বর্তমানে সে রাজ্যে অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ৪২ হাজার ৯৫৫ টি।

আরও পড়ুন: আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ, পাকিস্তানে নিষিদ্ধ পাবজি

দেশের রাজধানী দিল্লিতে মাঝে দু’দিন সংক্রমণ নিম্নমুখী হলেও ফের বেলাগাম হয়ে উঠছে মারণ ভাইরাস। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ২ হাজার ৫২০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৯৪ হাজার ৬৯৫ জনে। করোনাভাইরাস আরও ৫৯ প্রাণ কেড়েছে। মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৯২৩ জনে।

অন্যদিকে ভারত বায়োটেকের ‘কো ভ্যাক্সিন’ ইতিমধ্যেই মানবদেহে ট্রায়ালের অনুমতি পেয়ে গিয়েছে। চলতি জুলাই মাসেই ‘ভারত বায়োটেকের’ তৈরি ‘কোভ্যাক্সিন’ টিকা মানবদেহে ট্রায়াল শুরু হচ্ছে। মোট দু দফায় চলবে এই পরীক্ষা। ছাড়পত্র মিলেছে ডিসিজিআই এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের।

Related Articles

Back to top button
Close