fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণবাংলাদেশহেডলাইন

বাংলাদেশে ইলিশের কেজি ২৫০ টাকা

যুগশঙ্খ প্রতিবেদন, ঢাকা: বাংলাদেশের জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ধরা পড়ছে বড় আকারের রুপালি ইলিশ। প্রচুর পরিমাণ ইলিশ ধরা পড়ায় দামও কমেছে। মঙ্গলবার বরিশালের মহিপুর-আলীপুর মৎস্য বন্দরে সর্বনিম্ন দামে অর্থাৎ ২৫০ টাকা কেজিতে ইলিশ বিক্রি হয়েছে।

ইলিশ বিক্রেতারা জানান, প্রতিদিন সকালে আড়তে ইলিশ নিয়ে অনেকগুলো ট্রলার ভিড়ছে। প্রচুর পরিমাণ ইলিশ ধরা পড়ায় দামও কমেছে। ১৫ দিন আগে প্রথম গ্রেডের অর্থাৎ এক থেকে দেড় কেজি ওজনের ইলিশের মণ ছিল ৪০ হাজার টাকা; বর্তমানে ২৪ হাজার টাকায় কিনছেন আড়তদাররা। দ্বিতীয় গ্রেডের অর্থাৎ ৭০০ থেকে ৯০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের মণ ছিল ৩০ হাজার টাকা; তা এখন ১৫-১৭ হাজার টাকায় কিনছেন আড়তদাররা। মাছ বেশি ধরা পড়ায় দাম কমে গেছে। তবে কয়েকদিন পর দাম বেড়ে যাবে। জেলারা জানান, নদীতে আগের চেয়ে ইলিশ বেড়েছে। ইলিশ বেশি ধরা পড়ায় এখন দামও কম। সোমবার সকালে ৩০০-৪০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের কেজি ২৫০-৩০০ টাকা বিক্রি করেছি।

ইলিশের আড়তদাররা বলেন, স্থানীয় জেলেদের কাছ থেকে মাছ সংগ্রহ করে ঢাকার মোকামে পাঠাই। সোমবার সকালে ১১০০-১২০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের কেজি ৮০০ টাকা, এক কেজি ৫০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের কেজি ৯০০ টাকা, এক কেজির ইলিশ ৭০০ টাকা, ৩০০-৬০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের কেজি ২৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।  জেলে মালেক হাওলাদার বলেন, গত ১০ দিনে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়েছে। এখন মাছের দাম কম। গতকাল থেকে কিছুটা কম ধরা পড়ছে। তবে তিন-চারদিন পর ইলিশ কম ধরা পড়বে। তখন দাম বেড়ে যাবে। পটুয়াখালী জেলা মৎস্য আধিকারিক মোল্লা ইমদাদুল্লাহ বলেন, নিষেধাজ্ঞা সফল ও জেলেরা সচেতন হওয়ায় ইলিশের উৎপাদন ও আকার বেড়েছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার মাছ বেশি ধরা পড়ছে। এজন্য দাম কম।

Related Articles

Back to top button
Close