fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

২৮ দিন ধরে মর্গে লাশের পচন! হেনস্থা পরিবারের

কর্তব্যে গাফিলতির জেরে বদলি বাঘাযতীন হাসপাতালের সুপার

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: এক মৃতদেহ হাসপাতালের মর্গে ২৮ দিন ধরে পড়ে থাকায় চূড়ান্ত হেনস্থা হতে হল তার পরিবারকে। লাশ পচে দুর্গন্ধ ছড়ানোয় সমস্যা বাড়ে হাসপাতালেও। কিন্তু তারপরেও সমস্যার সমাধানে যথার্থ উদ্যোগ না নেওয়ায় বদলি হতে হল বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালের সুপার গৌরব রায়কে। স্বাস্থ্যভবন সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, তাঁকে উত্তর দিনাজপুরে ডেপুটি সিএমওএইচ (২) এর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তাঁর জায়গায় বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালের নতুন সুপার নিযুক্ত হচ্ছেন দেবাশিস মণ্ডল।

সরকারি পদ্ধতিতে সমাধান না মেলায় কমল পাত্র নামে ওই মৃতদেহের পরিবার দ্বারস্থ হন বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তীর।

সম্প্রতি দক্ষিণ ২৪ পরগনার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিককে চিঠি লেখেন সুজনবাবু। সেখানে তাঁর অভিযোগ, গত ২৮ দিন ধরে বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পরে একটি দেহ। পচে তার থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। অথচ দেহটি সৎকারের কোনও ব্যবস্থা করা হয়নি।

জানা গিয়েছে, গত ২৪ মে ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে আসে নেতাজিনগর থানার পুলিশ। ২৭ মে বিকেল ৫ টায় ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তারপর থেকে দেহটি পড়েই ছিল।

প্রাক্তন সুপারের দাবি, দেহটি সৎকার প্রসঙ্গে রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা-সহ দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলাশাসককে বারবার অনুরোধ করেও লাভ হয়নি। নেতাজিনগর থানা থেকে দাবিদারহীন ওই মৃতদেহ সৎকারের অনুমতি দিলেও মৃতদেহটি সৎকারের কোনও ব্যবস্থা করতে পারেনি হাসপাতাল।

সামাজিক মাধ্যমে বিষয়টি জানাজানি হতেই পুলিশ প্রশাসনের তরফ থেকে হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। অবশেষে বেসরকারি এক সংস্থার মাধ্যমে ২৩ জুন দেহটি সৎকার হয়। কিন্তু মৃতের পরিবারের হেনস্থার বিষয়টিতে ক্ষুব্ধ হয় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। এরপরই ওই সুপারকে বদলির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

Related Articles

Back to top button
Close