fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

জম্মু ও কাশ্মীরের দুই জেলায় পরীক্ষামূলকভাবে চালু 4G পরিষেবা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: একবছর পর শাপমুক্তি। পরীক্ষামূলকভাবে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মীরের একটি করে শহরে চালু হল ফোর-জি ইন্টারনেট পরিষেবা। রবিবার রাত থেকে জম্মু-কাশ্মীরের দুই জেলায় ৪জি ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করা হয়েছে। জানা গিয়েছে পরীক্ষামূলকভাবে এই পরিষেবা শুরু হয়েছে। এক বছরের বেশি সময় ধরে উপত্যকায় 4G  ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ থাকার পর তা শুরু হল। জানা গিয়েছে, জম্মু-কাশ্মীরের গান্দেরবাল ও উধমপুর জেলাতে এই পরিষেবা চালু হয়েছে। একটি জেলা জম্মু ও অন্যটি কাশ্মীরের মধ্যে পড়ে। রবিবার রাত ৯টা থেকে শুরু হয়েছে এই পরিষেবা।

২০১৯ সালের ৫ আগস্ট সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩৭০ বিলোপের মাধ্যমে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করা হয়। সেই সময় থেকেই অশান্তি এড়াতে ভূস্বর্গে 4G ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রয়েছে। দীর্ঘদিন মোবাইল ফোন পরিষেবাও বন্ধ রাখা হয়েছিল। বর্তমানে বিভিন্ন নিয়মকানুন মেনে 2G পরিষেবা মেলে। কেন্দ্রের এহেন সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল বেসরকারি সংস্থা ফাউন্ডেশন ফর মিডিয়া প্রফেশনাল। তাঁদের আবেদনের ভিত্তিতে দফায়-দফায় শুনানি চলছিল। সেই মামলার শুনানিতেই 4G পরিষেবা চালুর কথা জানান অ্যাটর্নি জেনারেল।

শনিবার সুপ্রিম কোর্টকে কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছিল, একটি বিশেষ কমিটি যারা জম্মু-কাশ্মীরের ২০টি জেলায় ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করার বিষয়টি দেখছে, তারাই এই প্রস্তাব দিয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরের স্বরাষ্ট্র দফতরের তরফে একটি নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছে, ‘কাশ্মীরের গান্দেরবাল ও জম্মুর উধমপুর জেলায় হাইস্পিড ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করা হল। পরীক্ষামূলকভাবে এই পরিষেবা চলবে। বাকি ১৮টি জেলায় ২জি পরিষেবা চলবে।’ এই নির্দেশিকায় আরও বলা হয়েছে, শুরু থেকেই শুধুমাত্র পোস্টপেড গ্রাহকরা এই হাইস্পিড ইন্টারনেট পরিষেবা পাবেন। কিন্তু প্রিপেড গ্রাহকরা একবার ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পরেই এই পরিষেবার সুবিধা পাবেন। এই ৪জি পরিষেবায় স্পিডের কোনও লিমিট থাকবে না বলেই জানানো হয়েছে নির্দেশিকায়।

আরও  পড়ুন: দেশজুড়ে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৫০ হাজার, আক্রান্ত ২৬ লক্ষের বেশি

প্রসঙ্গত, ১১ মে জম্মু-কাশ্মীরে ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ানোর বিষয়টি কেন্দ্রকে পুনর্বিবেচনার নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালত। কিন্তু তা করে উঠতে পারেনি কেন্দ্র ও কাশ্মীর প্রশাসন। এরপরই শীর্ষ আদালতে যায় ফাউন্ডেশন ফর মিডিয়া প্রফেশনাল। সেসময় কাশ্মীরের উপরাজ্যপাল জিসি মুর্মু জানিয়েছিলেন, 4G পরিষেবা চালু করতে কোনও বাধা নেই। শেষপর্যন্ত স্বাধীনতা দিবসের পরদিন নতুন এক ভোর দেখতে চলেছে কাশ্মীর।

প্রসঙ্গত, ১১ মে জম্মু-কাশ্মীরে ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ানোর বিষয়টি কেন্দ্রকে পুনর্বিবেচনার নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালত। কিন্তু তা করে উঠতে পারেনি কেন্দ্র ও কাশ্মীর প্রশাসন। এরপরই শীর্ষ আদালতে যায় ফাউন্ডেশন ফর মিডিয়া প্রফেশনাল। সেসময় কাশ্মীরের উপরাজ্যপাল জিসি মুর্মু জানিয়েছিলেন, 4G পরিষেবা চালু করতে কোনও বাধা নেই। শেষপর্যন্ত রবিবার রাত থেকে চালু হল ফোরজি পরিষেবা।

Related Articles

Back to top button
Close