fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ক্ষেমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে তৃণমূলে যোগদান ৫০০ কর্মীর

মিল্টন পাল,মালদা, ২২ আগস্ট: ক্ষেমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় ৫০০জন কর্মী-সমর্থকরা বিজেপি দল ত্যাগ করে তৃণমূলে যোগদান করলেন। মালদার চাঁচোল ২ ব্লকের আদিবাসী অধ্যুষিত ক্ষেমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে একসঙ্গে এত কর্মী সমর্থক বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করায় ওই এলাকায় শাসকদলের শক্তি অনেকটা বৃদ্ধি পেল বলে দাবি দলের জেলা নেতৃত্বের। এদিনের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চাঁচল ২ ব্লকের অন্তর্গত মালতিপুর বিধানসভা কেন্দ্রে কো-অর্ডিনেটর তথা প্রাক্তন বিধায়ক রহিম বক্সী সহ অন্যান্য সদস্যরা। পাল্টা বিজেপির দাবি নিজেদের দলের কর্মীদের দলে যোগ দিয়ে রাজ্য নেতৃত্বের কাছে ভালো সাজতে চাইছে তৃণমূল।

বিজেপি দলত্যাগ করে প্রায় ৫০০ কর্মী- সমর্থকরা তৃণমূলে যোগদান করেন। দলত্যাগের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে শতাধিক মহিলারাও উপস্থিত হয়েছিলেন। বিজেপি দল ছেড়ে আসা কর্মী-সমর্থকদের গলায় তৃণমূল দলের উত্তরীয় পরে তাদের সম্মান জানানো হয়। বিজেপি দলত্যাগ করে আসা কর্মীদের হাতে তৃণমূলের ঝাণ্ডা তুলে দেন মালতিপুরের কোডিনেটর তথা প্রাক্তন বিধায়ক রহিম বক্সি। বিজেপি দল ছেড়ে আসা কর্মী রীতা ওঁরাও বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে বিজেপি দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলাম। কিন্তু আমাদের সামান্য সমস্যাটুকু নিয়ে পাশে দাঁড়ায়নি এলাকার বিজেপি নেতারা।

আরও পড়ুন:কাজু-আখরোট-বাদাম দিয়ে গণেশ-এর মূর্তি গড়ে তাক লাগালেন চিকিৎসক

এমনকী চাঁচোলের বিজেপি দলের সাংসদ খগেন মুর্মু তিনিও এলাকার কর্মী-সমর্থকদের পাশে কোনদিন দাঁড়াননি। আমরা তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়নের শামিল হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছি। তৃণমূল দলের মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে আদিবাসী সহ বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষের জন্য গ্রামীণ এলাকায় সার্বিক উন্নয়ন করে চলেছেন, তারই অনুপ্রেরণায় এদিন বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করেছি।

মালতিপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল দলের কো-অর্ডিনেটর রহিম বক্সী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিজেপি দল করে বঞ্চনার শিকার হয়েছেন আদিবাসী সহ বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষেরা। ন্যূনতম সহযোগিতা তারা পাইনি। তাই এদিন বিজেপি দল ছেড়ে কর্মী সমর্থকরা তৃণমূলে যোগদান করেছেন। তাঁদের হাতে দলীয় ঝান্ডা তুলে দেওয়া হয়েছে। সম্মানের সহিত তাদের তৃণমূলে স্বাগত জানানো হয়েছে। এর ফলে চাঁচল ২ ব্লকের তৃণমূলের শক্তি বৃদ্ধি হল।

পাল্টা জেলা বিজেপির সহ সভাপতি অজয় গাঙ্গুলি বলেন, তৃণমূল দলের অনেক লুঠের টাকা রয়েছে। তার প্রলোভনে কেউ পা দেবে না যারা বুঝবে। বিজেপির কেউ দল ত্যাগ করেনি। তৃণমূল দল ভাঙাতে না পেরে নিজেদের কর্মীদের নতুন করে দলে যোগদান করিয়ে রাজ্য নেতৃত্বের কাছে বার্তা দিচ্ছে। এতে আমাদের কোনও ক্ষতি হবে না।

Related Articles

Back to top button
Close