fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হল বর্ধমান ডেন্টাল কলেজের চিকিৎসক -নার্স সহ ৭ জনকে

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়,  বর্ধমান: এবার কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো বর্ধমান ডেন্টাল কলেজ ও হাসপাতালের ৪ চিকিৎসক সহ ৭ জনকে।ডেন্টাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসকের  বাবার শরীরে  করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ার খবর বুধবার এসে পৌঁছায় জেলা স্বাস্থ্য দফতরে।তার পরেই ডেন্টাল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নড়েচড়ে বসে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বৃহস্পতিবার থেকে চিকিৎসক ও নার্স সহ ৭ জনই হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা শুরু করলেন।

ডেন্টাল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, যে চিকিৎসকের বাবা করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন তিনি হাওড়া জেলার বাসিন্দা। দিন দুই আগে ওই ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের প্রমাণ মেলে।

তার কিছুদিন আগে বাবাকে দেখতে হাওড়ার বাড়িতে গিয়েছিলেন বর্ধমান ডেন্টাল কলেজের এক চিকিৎসক।ওই চিকিৎসকের বাবার শরীরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের প্রমাণ মেলার খবর আসার পরেই বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়।খোঁজ নিয়ে জানা হয় ডেন্টাল কলেজের করা করা ওই চিকিৎসকের সংস্পর্শে  এসেছিলেন।

প্রিন্সিপ্যাল সুহৃতা পাল জানিয়েছেন, চিহ্নিত করা ৪ জন ডাক্তার ও ১ নার্স সহ ৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা বলা হয়েছে।

সম্প্রতি, মুর্শিদাবাদের  সালারের এক ক্যানসার আক্রান্ত বৃদ্ধ ও পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষের এক ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাসের প্রমাণ মিলতেই  একই ভাবে নড়েচড়ে বসে জেলা স্বাস্থ্য দফতর। কোয়ারেন্টাইন করা হয় বর্ধমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের এবং কাটোয়া হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স সহ ৫৭ জনকে।

তাঁদের সকলের লালা রস পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় নাইসেডে। সেখান থেকে পাঠানো রিপোর্ট জেলা স্বাস্থ্য দফতরে এসে পৌঁছেছে। কোয়ারেন্টাইনে থাকা বর্ধমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ৩৯ জনেরই রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

এছাড়াও বৃহস্পতিবার পর্যন্ত আসা রিপোর্ট অনুযায়ী  কোয়ারেন্টাইনে থাকা কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালের ১৮ জনের মধ্যে ১৮ জনের-ই রিপোর্ট নেগেটিভ। এই রিপোর্টের ভিত্তিতে আপাত স্বস্তিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

Related Articles

Back to top button
Close