fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

৯ করোনা যোদ্ধা চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীকে স্বাধীনতা দিবসে সম্বর্ধনা দিল প্রশাসন

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: করোনা আক্রান্ত হয়েও করোনা যুদ্ধের ময়দান থেকে সরে যাননি। উল্টে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীরা সংক্রমিতদের মনোবল যোগাচ্ছেন। শনিবার ৭৪তম স্বাধীনতা দিবসের দিনে জাতীয় পতাকা ও পুষ্প স্তবক হাতে তুলে দিয়ে এমনই ৯ জন করোনা যোদ্ধাকে সম্বর্ধিত করলো জামালপুর ব্লক প্রশাসন। এই সম্বর্ধনা আরও মনোবল যোগাবে বলে জানালেন করোনা আক্রান্ত হয়েও হার না মানা চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীরা।

করোনা সংক্রমণের কারণে জেরবার ভারত সহ গোটা বিশ্ব। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। পূর্ব বর্ধমান জেলাতেও তার কোন ব্যতিক্রম ঘটেনি। শুক্রবার আসা রিপোর্ট অনুযায়ী জেলা একদিনে ৮৬ জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। সবমিলিয়ে এদিন পর্যন্ত জেলায় কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭১৩ জন। তার মধ্যে ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

জেলার সাধারণ নগরিকরাই শুধু করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এমনটা নয়। একেবারে
সামনের সারিতে থেকে করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন এমন আনেক চিকিৎসক , নার্স , স্বাস্থ্য কর্মীও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সম্প্রতি চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মী মিলেয়ে জামালপুর ব্লক হাসপাতালের ৯ জন করোনা আক্রান্ত হন। একসঙ্গে এতজন চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মী করোনা আক্রান্ত হওয়ায় বন্ধ করে দিতে হয় জামালপুর হাসপাতালের আউটডোর পরিষেবা। আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা করিয়ে সুস্থ হবার পর তারা কেউ মনোবল হারিয়ে ফেলেননি। ফের তারা কাজে যোগ দিয়েছেন। শুধু কাজে যোগ দেওয়াই নয়, তারা এখন সংক্রমিতদের মনোবল বাড়ানোর কাজেও মুখ্য ভূমিকা পালন করে চলেছেন।

এমনই ৯ করোনা যোদ্ধাকে সম্বর্ধিত করতে এদিন সকালে জামালপুর ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পৌঁছান বিডিও শুভঙ্কর মুজুমদার, ওসি অরুণ সোম ও পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খান। হাসপাতাল চত্ত্বরে দেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করার পর তারা করোনাকে হারমানানো চিকিৎসক , নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মী সহ ৯ জনকে সম্বর্ধিত করেন। তাদের প্রত্যেকের হাতে জাতীয় পতাকা ও পুষ্পস্তবক তুলে দেওয়া হয়। পাশাপাশি হাসপাতালের অন্য সকল কর্মীদেরকেও সম্বর্ধনা জানানো হয়। জেলা শাসক বিজয় ভারতিও এদিন জামালপুর হাসপাতালের ৬ কোভিড যোদ্ধাকে সম্বর্ধিত করেছেন।

বিডিও শুভঙ্কর মজুমদার ও পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খান বলেন, ‘একেবারে প্রথম সারিতে থেকে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীরা। করোনা আক্রান্ত হয়েও জামালপুর হাসপাতালের ৯ জন হার মানেননি। সুস্থ হয়ে ফের তারা কাজে যোগ দিয়ে সাধারণ মানুষকে পরিষেবা দিচ্ছেন। এর থেকে বড় কাজ আর কি হতে পারে ! তাই দেশের স্বাধীনতা দিবসে অসম সাহসী এই করোনা যোদ্ধাদের সম্বর্ধিত করা হল। ’ করোনা আক্রান্ত হয়েও হার না মানা হাসপাতালের নার্স মাধবি দাস বলেন , সম্বর্ধিত হয়ে আমদের মনোবল দ্বিগুন বেড়ে গেল। এই নার্স বার্তা দেন ,‘ করোনা আক্রান্ত হলে মনোবল হারাবেন না। সংক্রমিত ব্যক্তি মনোবল চাঙ্গা রাখলে করোনা তার কাছে হার মানবেই।’

Related Articles

Back to top button
Close