fbpx
অসমদেশহেডলাইন

অসমে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি, ২৬ জেলা প্লাবিত, মৃত-৯২

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: অসমে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটেছে। রাজ্যের ২৬ জেলার বিস্তীর্ণ অঞ্চলই জলের তলায় চলে গিয়েছে। একাধিক জায়গায় সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। প্রায় ৩৩ লক্ষ মানুষ বন্যা কবলিত। ব্রহ্মপুত্র সহ একাধিক নদীর জল বিপদসীমার উপর দিয়ে বয়ে চলেছে। বুধবার নতুন করে আরও সাতজনের মারা যাওয়ায় রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ৯২ জনের প্রাণহানি হল। তার মধ্যে ৬৬ জন বন্যায় ও ২৬ জন ভূমিধসে মারা গিয়েছেন। ২৬ জেলার ৯৩টি রেভিনিউ সার্কেলের ৩৩৭৬ গ্রাম বর্তমানে জলের তলায় এবং রাজ্যে প্রায় ১.২৮ লাখ হেক্টর কৃষিকাজের জমি জলের নিচে চলে গিয়েছে।

রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা কর্তৃপক্ষের রিপোর্ট অনুযায়ী, মরিগাও অঞ্চলে তিনজন বন্যার জলের তোরে ভেসে গিয়েছে। দু’জন বারপেতা জেলায় এবং সোনিতপুর এবং গোলাঘাট জেলায় একজন করে প্রাণ হারিয়েছেন। এখনও অবধি মোট ২৬ জেলায় ৩৬ লাখ মানুষ রাজ্যের ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এঁদের মধ্যে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ধুবড়ি, সেখানেই শুধু ক্ষতি হয়েছে ৫.৫১ লাখ মানুষের। পাশাপাশি, বারপেতা জেলায় ৫.২৯ লাখ মানুষ, গোয়ালপাড়া জেলায় ৪.২৭ লাখ, মোরীগাও জেলায় ৪.২০ লাখ, দক্ষিণ সালমারা জেলায় ২.২৫ লাখ, দারাং জেলায় ১.৮১ লাখ, কামরুপ জেলায় ১.৪৪ লাখ, নলবাড়ি জেলায় ১.২৭ লাখ এবং গোলাঘাট জেলায় এখনও অবধি ১.২৩ লাখ মানুষ ব্যপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলেই জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: করোনায় ধূমপান ছেড়েছেন ১০ লক্ষ মানুষ

অসমের মোট ৩৬,৩২০ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ রাজ্যের তরফের ৬২৯টি ত্রাণশিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন। যদিও কিছু নদীতে জল নামতে শুরু করেছে তবে ব্রহ্মপুত্রের জল এখনও বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে বেশকিছু জেলায়। এনডিআরএফ এবং এসডিআরএফের সাহায্যে বুধবার ৩,৯৯১ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। বন্যার জলের স্রোতে এখনও অবধি ১২৯টি ব্রিজ এবং কালভার্ত এবং ১৩৮৫টি রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

জলের তলায় চলে গিয়েছে কাজিরাঙা ন্যাশনাল পার্ক। বেশ কিছু বাঘ ও গণ্ডার জলের হাত তেকে বাঁচতে আশেপাশের গ্রামগুলিতে আশ্রয় নিয়েছে। বেশ কিছু পশু মারাও গিয়েছে। বন্যা দুর্গতদের উদ্ধারে ইতিমধৃএ জাতীয় ও রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যদের নামানো হয়েছে। ১৮০টি নৌকার সাহায্য চলছে উদ্ধার কার্য। ২০ হাজারের বেশি মানুষকে উদ্ধার করে ত্রাণ শিবিরে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। জোড়হাট জেলায় টেওক রাজাবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ে খোলা অস্থায়ী ত্রাণ শিবির পরিদর্শন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল। বন্যা দুর্গতদের সঙ্গে কথা বলার সময়ে তিনি সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close