fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদায় করোনায় আক্রান্ত পুরাতন মালদার বিডিও সহ এক ব্যবসায়ী

জেলা প্রতিনিধি, মালদা: এবার করোনাই আক্রান্ত হলেন পুরাতন মালদার বিডিও। একইসঙ্গে মালদা শহরের কোর্ট চত্বর এলাকার একটি প্রতিষ্ঠিত চশমার দোকানের মালিকও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বুধবার রাতের স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী, নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২০ জন। যার মধ্যে ৯ জনই রয়েছেন ইংরেজবাজার শহরের বাসিন্দা। পুরো বিষয়টি জানাজানি হতেই শহরের বিভিন্ন মহলে আতঙ্ক ছড়িয়েছে।

এদিকে পুরাতন মালদা ব্লক অফিসের পদস্থ ওই কর্তার করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ার পরেও তিনি চিকিৎসার জন্য সংশ্লিষ্ট এলাকার হাসপাতালে ভর্তি হননি বলে অভিযোগ। যা নিয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে অসন্তোষ ছড়িয়েছে।
ব্লক অফিস সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি জানতে পেরেছি। ব্লকের যিনি আমলা রয়েছেন তিনি করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরেও চিকিৎসার জন্য হোম কোয়ারান্টিনে রয়েছেন। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়নি। তাতে সংক্রমণ যে এলাকায় ছড়াতে পারে তারও আশঙ্কা করছেন বাসিন্দারা বলে অভিযোগ তুলেছেন।

আরও পড়ুন:জরুরি অবস্থায় গণতন্ত্র রক্ষার জন্য ত্যাগ স্বীকারের কথা ভারত ভুলবে না: প্রধানমন্ত্রী মোদি

এদিকে পুরাতন মালদা ব্লকের পদস্থ এক আমলার করোনা পজেটিভ ধরা পড়ার পর একপ্রকার ব্লক অফিস বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার ব্লক অফিসে কোনরকম কাজকর্ম হয়নি। এমনকী সাধারণ মানুষকেও অফিসে প্রবেশ করতে দেওয়া হয় নি। সকাল থেকেই ওই ব্লক অফিসের সামনে পুলিশি প্রহরা বসানো হয়েছিল। পাশাপাশি গোটা অফিস জুড়ে স্যানিটেশনের ব্যবস্থা করা হয়। ব্লকের ওই পদস্থ কর্তার সঙ্গে কোন কোন কর্মীরা সংস্পর্শে এসেছেন সেসব কর্মীদের আপাতত সনাক্ত করে সংশ্লিষ্ট এলাকার কোয়ারান্টাইনে সেন্টারে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি তাদের লালারসের নমুনাও সংগ্রহ করা হবে বলেও জানিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর।

এদিকে মালদা শহরের কোর্ট চত্বর এলাকায় নামজাদা একটি চশমার দোকানের মালিকের করোনা ধরা পড়াতেই আতঙ্ক ছড়িয়েছে। কি করে ওই ব্যবসায়ীর সংক্রামিত হলেন, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। অনেকেই বলছেন ওই ব্যবসায়ী তো মালদা ছেড়ে বাইরে কোথাও যাননি। অথচ হঠাৎ করে তিনি করোনা আক্রান্ত হলেন। তাহলে কি গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা রয়েছে, এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে সাধারণ মানুষ থেকে প্রশাসনের একাংশের মধ্যে।

আরও পড়ুন: সৈকত নগরী দিঘায় গড়ে উঠেছে অস্থায়ী মাছের নিলাম কেন্দ্র 

এদিকে জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত মালদায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ৪৭২। গত তিন দিনের মধ্যে অন্ততপক্ষে ৫০ জনের করোনা আক্রান্তের তথ্য স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে পাওয়া গিয়েছে।
যদিও এদিন আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য পুরাতন মালদা ব্লকের নারায়ণপুর এলাকার কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। পাশাপাশি করোনার চিকিৎসার ওই হাসপাতাল থেকে ইতিমধ্যে ২৭০ জন রোগি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। ফলে সেই দিকেও যে ধীরে ধীরে চিকিৎসা ক্ষেত্রে সাফল্য মিলছে তা এক প্রকার স্বীকার করেছেন জেলা স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা।

Related Articles

Back to top button
Close