fbpx
দেশহেডলাইন

নিজের স্ত্রীকে মারধর পুলিশ কর্তার! ভিডিও ভাইরাল হতেই বিপাকে অভিযুক্ত  

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: তিনি হলেন রাজ্যের নাম করা একজন পুলিশ কর্তা। মানুষকে সুরক্ষা করা তাঁর কাজ। আর তিনিই কিনা নিজের স্ত্রীকে মারধর করছেন৷ সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও যথেষ্ট ভাইরাল হয়েছে। আর সেই ভিডিও ভাইরাল হতেই বিপাকে পড়েছেন মধ্যপ্রদেশের এক শীর্ষ পুলিশ কর্তা৷

যদিও তাঁর বক্তব্য, গোটাটাই পারিবারিক বিবাদ৷ ফলে কোনও অপরাধ করেননি তিনি! পুরুষোত্তম শর্মা নামে ওই পুলিশকর্তাকে ইতিমধ্যেই ছুটিতে পাঠিয়েছে সরকার৷ ভাইরাল হওয়া ভিডিও-তে দেখা গিয়েছে, ১৯৮৬ সালের ব্যাচের আইপিএস অফিসার পুরুষোত্তম শর্মা নিজের স্ত্রীকে ঘরের মেঝেত ফেলে মারধর করছেন৷ ভিডিও-তে ঘরের মধ্যে আরও দু’ জন ব্যক্তিকে দেখা গিয়েছে৷ এ ছাড়াও একটি পোষ্য সারমেয়কেও দেখা যায় ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিও-য়৷ ভিডিও-তে অবশ্য দেখা গিয়েছে, নিজের হাতের আঘাত দেখিয়ে স্ত্রীর উপরে চিৎকার করছেন ওই পুলিশ আধিকারিক৷

                      আরও পড়ুন: দক্ষিণ দমদমে দলীয় কার্যালয় পুনরুদ্ধার বিজেপির

নিজের স্বপক্ষে যুক্তি দিয়ে অভিযুক্ত পুলিশ কর্তা বলেছেন, ‘আমি যদি স্ত্রীর উপরে এ ভাবে অত্যাচার চালাতাম তাহলে তো তিনি আগেই আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করতেন৷ আমি কোনও অপরাধী নই বা হিংস্র স্বভাবেরও নই৷ এটা সম্পূর্ণ পারিবারিক বিবাদ, কোনও অপরাধ নয়৷ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমি যে পরিস্থিতিতে পড়েছি তা দুর্ভাগ্যজনক৷ আমার স্ত্রীর আমার উপরে নজরদারি চালান৷ বাড়িতে ক্যামেরাও লাগিয়েছেন তিনি৷

সংবাদসংস্থাকে তিনি আরও জানিয়েছেন, তাঁরা ৩২ বছর সংসার করছেন৷ এর আগে ২০০৮ সালেও তাঁর স্ত্রী তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছিলেন বলে স্বীকার করেছেন ওই পুলিশ আধিকারিক৷ যদিও তাঁর দাবি, ‘অভিযোগ করার পরেও ২০০৮ সালের পর থেকে আমার সঙ্গে আমার বাড়িতেই রয়েছেন আমার স্ত্রী৷ সমস্ত সুযোগ সুবিধা ভোগ করেছেন তিনি৷ আমার টাকায় বিদেশেও ঘুরেছেন৷’ জানা গিয়েছে, পুরুষোত্তম শর্মা এবং তাঁর বন্ধুর সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়ার পরেই স্ত্রীকে মারধর শুরু করেন ওই পুলিশ অফিসার৷

Related Articles

Back to top button
Close