fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কাঁথির পেটুয়া মৎস্যবন্দরে নিখোঁজ এক মৎস্যজীবী, স্পীড বোট দিয়ে তল্লাশি পুলিশের

মিলন পণ্ডা, জুনপুট (পূর্ব মেদিনীপুর):  মৎস্যবন্দরে সমুদ্রের জোয়ারের জলে তলিয়ে গেল ট্রলারের এক মৎস্যজীবী। একদিন কেটে গেলেও নিখোঁজ মৎস্যজীবীর কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটছে শুক্রবার দুপুর ২ টা নাগাদ কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের পেটুয়া মৎস্যবন্দরে। পুলিশ জানিয়েছে, নিখোঁজ মৎস্যজীবী খোকা বেরা (৩৫)। তাঁর বাড়ি কাঁথি থানার পদ্মপুকুরিয়া এলাকায়। দীর্ঘদিন ধরে জুনপুট উপকুল থানার পশ্চিম বামুনিয়া গ্রামের রতন জানার “পঞ্চপ্রিয়া” ট্রলারের মৎস্যজীবির কাজ করতো।

জানা গেছে, শুক্রবার দুপুরে সমুদ্র থেকে মৎস্য শিকার করে কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের পেটুয়া মৎস্যবন্দরে ফিরেছিল পঞ্চপ্রিয়া” নামে ট্রলারটি। মৎস্যবন্দরে ঢুকে ট্রলারটি নোঙর করার সময় আচমকাই ট্রলারের দড়িতে জাল লেগে যায়। তখনই কিন্তু মৎস্যবন্দরে জোয়ারের জলে ভরপুর ছিল। ওই মৎস্যজীবী জোয়ারের জলকে উপেক্ষা করে জট মুক্ত করতে সমুদ্রে নামেন। তারপরে ওই মৎস্যজীবি আর উঠে আসেননি। দীর্ষক্ষণ ওই মৎস্যজীবি না উঠলে অন্য মৎস্যজীবীরা খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। অন্যান্য মৎস্যজীবি উদ্ধার করতে সমুদ্রে নামেন। মৎস্যজীবির সন্ধায় না পেয়ে জুনপুট উপকুল থানায় পুলিশের দ্বারস্থ হয়।

       আরও পড়ুন: নবনির্বাচিত রাষ্ট্রপতি বাইডেনকে শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসে জুনপুট উপকুল থানার পুলিশ বাহিনী। এরপর স্পীড বোট নামিয়ে তল্লাশি শুরু করেন। কিন্তু কোথাও মৎস্যজীবির হৃদিশ পাওয়া যায়নি। এদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত স্পীড বোট দিয়ে তল্লাশি শুরু করেন। শনিবার সকাল থেকে স্পীড বোট চালিয়ে তল্লাশি শুরু করেন। বিকাল পর্যন্ত মৎস্যজীবিকে উদ্ধার করতে পারেনি। জুনপুট উপকুল থানার ওসি রাজু কুণ্ডু বলেন, স্পীড বোট দিয়ে এখনো দফায় দফায় তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close