fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

হলদিয়া বন্দরে আটকে থাকা একটি বিদেশী জাহাজ বিক্রি হল ২০ কোটি টাকায়

 

মিলন পণ্ডা, হলদিয়া (পূর্ব মেদিনীপুর): ইতিহাসে পাতায় নাম লিখলো পূর্ব মেদিনীপুর জেলার শিল্পনগরী হলদিয়া। অবশেষে সমাধান মিললো হলদিয়া বন্দরে। আটক হওয়া বিদেশী জাহাজটি প্রায় সাড়ে তিন বছর পর হলদিয়া বন্দর কর্তৃপক্ষ কুড়ি কোটি টাকায় বিক্রি করলো। বন্দরের চার্জ বা পোর্ট চার্জ দীর্ঘদিন ধরে না মেটানোর অভিযোগে বন্দর কর্তৃপক্ষ ব্যালেটস্কি নামে ওই রাশিয়ান জাহাজটিকে আটক করে রেখে ছিল। ওই বিষয়ে হাইকোর্টে মামলা করেন বন্দর কর্তৃপক্ষ ।মামলায় হাইকোর্ট জাহাজটি বিক্রির স্বপক্ষে রায় দেন।হাইকোর্টের তত্ত্বাবধানে বন্দর কর্তৃপক্ষ নিলামে বিক্রির ব্যবস্থা করে। জাহাজ বিক্রি করে দুই দফায় মোট কুড়ি কোটি টাকা পেলো বন্দর কর্তৃপক্ষ। ইতিহাসে প্রথম এই ধরনের ঘটনা ঘটলো।

জানা গেছে, ২০১৭ সালে ওই রাশিয়ান জাহাজটি ইস্পাত শিল্পের জন্য বন্দরে কোকিং কোল এনেছিল। জাহাজের মালিক ও এজেন্টদের মধ্যে গণ্ডগোলের জেরে জাহাজটি মাল খালাস পরে বন্দরে জাহাজটিকে আটকে থাকে। অভিযোগ বারবার জানানো সত্ত্বেও মালিক বা এজেন্ট কেউ বন্দরে বার্থিং চার্জ মেটায় নি।চার্জ এর পরিমাণ কয়েক কোটি টাকা দাঁড়ায়। ২০১৯ সালের মে মাসে বন্দরের লিগেলসেল হাইকোর্টের একটি মামলা নিয়ে আবেদন জানায়। আদালত জাহাজ বিক্রির স্বপক্ষে রায় দেয় এজন্য মেরিন ডিপার্টমেন্টের ডাইরেক্টর হাইকোর্ট পেশাল অফিসার হিসেবে নিয়োগ করে। অকসান ডেকে জাহাজ বিক্রির কথা বলা হয়।

অন্যদিকে জাহাজ বিক্রির জন্য কেন্দ্রের ডাইরেক্টর অফ শিপিং থেকেও অনুমোদন নেওয়া হয়। বিষয়টি রাশিয়ান এমব্যাসিকেও জানানো হয়।বন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন সিঙ্গাপুরের গ্লোরি সিপ ম্যানেজমেন্ট জাহাজটি কেনে গত ২ মার্চ। হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারের কাছে জাহাজ বিক্রির টাকা জমা পড়ে।লকডাউনের মধ্যে প্রথম দফায় বন্দর প্রায় এক কোটি ৭০ লক্ষ টাকা। বাকি গত বার ১৮ কোটি ৭৪ লাখ টাকা হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারের কাছে বন্দরের অ্যাকাউন্টে জমা পড়ে।

Related Articles

Back to top button
Close