fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কারখানার ভিতরে মুক ও বধির যুবতীকে শ্লীলতাহানি, গ্রেফতার দুই

মিলন পণ্ডা, কাঁথি (পূর্ব মেদিনীপুর): মূক বধির এক যুবতীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠলো ফ্যাক্টরির দুই কর্মীর বিরুদ্ধে । এই ঘটনার পর কাঁথি ১ ব্লকের সুজালপুর এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনা সামাল দিতে রবিবার রাতে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় কাঁথি থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ও প্রশাসনের আধিকারীরা। ঘটনা বেগতিক বুঝে ওই দুই যুবক ঘটনাস্থল থেকে চম্পট দেয়। ওই যুবতীকে উদ্ধার করে কাঁথি থানা পুলিশ চিকিৎসার জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠায়। এরপর অভিযান চালিয়ে পুলিশ দুই যুবককে পাকড়াও করে।

 

 

কাঁথি থানা পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তরা হল কোচবিহার জেলার হাবিব হাসান ও জলপাইগুড়ির লিন্টন মহম্মদ। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দুই যুবকের ভিন জেলায় বাড়ি হলেও কাঁথির একটি কাজু কারখানায় কাজ করতো। অন্যান্য শ্রমিকদের সঙ্গে কাজ করতেন হামিরমহরের মূক ও বধির যুবতী। রবিবার সন্ধ্যায় কাজু কারখানায় কেউ না থাকায় সুযোগ নিয়ে ফ্যাক্টরি দুই কর্মী ওই যুবতীকে উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে বলে অভিযোগ।

 

 

কোনওরকমে ফ্যাক্টরি থেকে পালিয়ে ওই যুবতীর পরিবারের সদস্যদের আকারে-ইঙ্গিতে বিষয়টি জানায়। এরপর মুখ বধির যুবতীর পরিবার আত্মীয় থেকে প্রতিবেশীরা ফ্যাক্টরির সামনে এসে প্রতিবাদ জানায়। দুই পক্ষের বচসার জেরে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। লকডাউনের মাঝে এলাকায় উত্তেজনা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয় কাঁথি থানা বিশাল পুলিশবাহিনী ও এলাকায় জন প্রতিনিধিরা। ঘটনার বেগতিক বুঝে ফ্যাক্টরি থেকে দুই যুবক পালিয়ে যায়। কাঁথি থানার পুলিশ মুক বধির যুবতীকে উদ্ধার করে নিয়েছে চিকিৎসার জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠায়। রাতেই কাঁথি থানায় অভিযোগ দায়ের করে মুখ বধির যুবতীর দাদা। অভিযোগ পেয়ে তল্লাশি চালিয়ে দুই যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। সোমবার অভিযুক্ত দুজনকে কাঁথি মহকুমা আদালতে তোলা হয়। মুক বধির যুবতীর গোপন জবানবন্দি গ্রহণ করেন কাঁথি আদালতের বিচারক।

 

কাঁথি থানার এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুরো ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ধৃত দুই যুবকের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানি সহ একাধিক ধারার মামলার রুজু করেছে পুলিশ। কাঁথি এক ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি প্রদীপ গায়েন বলেন মুক বধির মেয়ে সুজালপুরে একটি কাজু কারখানায় কাজ করতো। ওই কারখানার দুই কর্মী ওই মেয়ের উপর খারাপ ব্যবহার করে। এই ঘটনার পর এলাকায় চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পুলিশ ও আমরা গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

Related Articles

Back to top button
Close