fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দুষ্কৃতীদের হাতে প্রহৃত বিশিষ্ট সাংবাদিক

ভাস্করব্রত পতি তমলুক : একদল মদ্যপ এবং গুণ্ডা দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত হলেন জেলার বিশিষ্ট সাংবাদিক জাহাঙ্গীর বাদশা।

 

 

গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ হল সংবাদ মাধ্যম। আর সেই সংবাদমাধ্যম এবার আক্রান্ত দুষ্কৃতীদের হাতে। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ময়নার বাকচা গ্রাম পঞ্চায়েতের গোড়ামহল গ্রামে নিজের আত্মীয় বাড়িতে গিয়েছিলেন রাজ্যের জনপ্রিয় বৈদ্যুতিন সংবাদ মাধ্যমের সাংবাদিক জাহাঙ্গীর বাদশা। আর সেখানেই তাঁকে এবং তাঁর পরিবারকে দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত হতে হয়। স্বাভাবিকভাবে খুবই চিন্তিত জেলার সাংবাদিক মহল।

 

 

ঐ সাংবাদিকের গাড়ি ভাঙচুরের পাশাপাশি তাঁকে এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের  প্রাণনাশের হুমকি পর্যন্ত দেওয়া হয়। ইতিমধ্যে ওই সাংবাদিক স্থানীয় ময়না থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ জানিয়েছেন।
পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ময়না থানার বাকচা গ্রাম পঞ্চায়েতের গোড়ামহল গ্রামে সাংবাদিক জাহাঙ্গীর বাদশা তাঁর পরিবারের সদস‍্যদের নিয়ে আত্মীয় বাড়ি মিলন ভৌমিক এর বাড়িতে গিয়েছিলেন। সমস্ত প্রশাসনিক নিয়ম মেনে এবং করোনা সুরক্ষা নিয়েই তাঁরা ওই গ্রামে প্রবেশ করেছিলেন। এমন সময় ওই গ্রামের এক দুষ্কৃতী চন্দন রাউৎ প্রথমে এসে মোটা লাঠি নিয়ে সাংবাদিককে হুমকি দেন যে, কেনো তিনি আত্মীয় মিলন ভৌমিকের বাড়িতে এসেছেন। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে হুমকি দেয় এবং এখুনি গ্রাম ছেড়ে চলে না গেলে গাড়ি ভেঙে দেওয়ারও কথা বলেন তিনি। এরপর সাংবাদিক ও তাঁর আত্মীয়রা রুখে দাড়ালে সেই মুহুর্তে চন্দন রাউৎ হুমকি দিয়ে এলাকা ছেড়ে চলে যায়। প্রায় দশ মিনিট পরে চন্দন রাউৎ আরও ছয়- সাত জনকে সঙ্গে নিয়ে এসে সাংবাদিক সহ তাঁর অাত্মীয়দের ও পরিবারের মহিলাদের মারতে উদ্ধত হয়।

 

এর পাশাপাশি গাড়িতে ভাঙচুর চালায় ও হুমকি দেয়। গ্রাম ছেড়ে না চলে গেলে গাড়িতে বোম্ব মেরে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হবে ও প্রাণে মেরে ফেলা হবে বলেও হুমকি দেয়। সাংবাদিক জাহাঙ্গীর বাদশা ময়না থানা ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তাদের জানান। পুলিশ প্রায় ঘটনা ঘটার কিছুক্ষণ পরেই ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তখন দুষ্কৃতকারীরা পালিয়ে যায়।

 

 

ইতিমধ্যেই সাংবাদিক জাহাঙ্গীর বাদশা ময়না থানাতে লিখিত অভিযোগ করেছেন। সাংবাদিক জাহাঙ্গীর বাদশার উপরে আক্রমণের ঘটনায় বিভিন্ন স্তর থেকে নিন্দার ঝড় উঠেছে। ময়না থানার পুলিশ দুষ্কৃতিদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে।

Related Articles

Back to top button
Close