fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগে গ্রেফতার ১

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: বিজেপির নবান্ন অভিযানের দিন অশান্ত হয় ২ নম্বর জাতীয় সড়কে পূর্ব বর্ধমানের মেমারির পালসিট টোলপ্লাজা । সেই অশান্তির ঘটনার ছবি সংগ্রহ করতে যাওয়া সাংবাদি নুর আহমেদকে মারধোরের অভিযোগে গ্রেফতার হল এক বিজেপি কর্মী। ধৃতের নাম রাজেশ মণ্ডল।

তার বাড়ি জেলার ভাতার থানার বলগোনা এলাকায় । রবিবার দুপুরে বর্ধমানের কালনা গেট এলাকা থেকে রাজেশকে গ্রেপ্তার করে মেমারি থানার পুলিশ । সোমবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে । ধৃতের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন বর্ধমানের সাংবাদিক মহল ।

পুলিশ জানিয়েছে , মেমারি নিবাসী নুর আহমেদ একটি বাংলা দেনিক সংবাদপত্রের সাংবাদিক । গত ৮ অক্টোবর নবান্ন অভিযানের ডাক দেয় বিজেপি। বাস ও অন্য গাড়িতে চড়ে সেই কর্মসূচিতে যোগ দিতে যাওয়া বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে টোলপ্লাজা কর্মীদের ওই দিন সকাল থেকে অশান্তি বাঁধে ।বিকালে ফেরার পথে বিজেপি কর্মীরা টোল প্লাজার কর্মীদের ওপর চড়াও হয় । তাদের মারধোর শুরু করে । মারধোরে টোলপ্লাজার কয়েকজন কর্মী আহত হন ।

সাংবাদিক নুর আহমেদ যখন ওই ঘটনার ছবি ক্যামেরা বন্দি করছিলেন তখনই তার উপর চড়াও হয় বিজেপি কর্মী রাজেশ মণ্ডল ও তার সহযোগীরা । নুর আহমেদকে রাস্তায় ফেলে ব্যাপক মারধোর করে রাজেশ । সহ সাংবাদিক ও টোলপ্লাজার কর্মীরা কোনরকমে উন্মত্ত বিজেপি কর্মী রাজেশ মণ্ডলের হাত থেকে নুর আহমেদকে উদ্ধার করেন ।

চিকিৎসার জন্য সাংবাদিককে পাঠানো হয় মেমারি হাসপাতালে । চিকিৎসায় কিছুটা সুস্থ হবার পর ঘটনা বিষয়ে সাংবাদিক নুর আহমেদ মেমারি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন । তদন্তে নেমে পুলিশ অভিযুক্তের খোঁজ চালানো শুরু করে । রবিবার দুপুরে পুলিশ জানতে পারের রাজেশ বর্ধমানের কালনা গেট এলাকায় ঘোরা ঘুরি করছে । পুলিশের দ্রুত সেখানে হানা দেয় ।

পুলিশ দেখেই অভিযুক্ত রাজেশ এলকার একটি পানা পুকুরে ঝাঁপ দেয়।পুলিশ কর্মীরা সেই পানা পুকুরে নেমে রাজেশ মণ্ডলকে ধরে মেমারি থানায় নিয়ে আসে । ঘটনার দিন ধৃতের সঙ্গে থাকা বাকিদের খোঁজ পেতে পুলিশ সোমবার রাজেশ মণ্ডলকে বর্ধমান আদালতে পেশ করে হেপাজতে নিতে পারে বলে জানা গিয়েছে। ।

Related Articles

Back to top button
Close