fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

মহিলার গোপনাঙ্গ থেকে সোয়াব সংগ্রহ, গ্রেফতার ল্যাব টেকনিশিয়ান

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা পরীক্ষা করাতে গিয়ে শ্লীলতাহানির শিকার হলেন এক মহিলা। অভিযোগ ওই মহিলার গোপনাঙ্গ থেকে সোয়াব সংগ্রহ করেছিলেন এক ল্যাব টেকনিশিয়ান। ঘটনায় অভিযোগের ভিত্তিতে ওই ল্যাব টেকনিশিয়ানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে যে, মহারাষ্ট্রের অমরাবতীর ওই মহিলা একটি শপিং মলে চাকরি করেন। গত ২৪ জুলাই ওই মলে কর্মরত একজনের করোনার রিপোর্ট পসিটিভ আসে। এর পরই মলে কর্মরত ২৫ জন করোনা পরীক্ষার জন্য ওই ল্যাবে আসেন। অভিযোগ ওই ল্যাবের এক টেকনিশিয়ান ওই মহিলাকে আলাদা করে ডেকে নেন। এরপরেই তাঁর শ্লীলতাহানি করে। গোপনাঙ্গ থেকে সোয়াব সংগ্রহ করে। আভিজোগ ওই মহিলাকে বলা হয় যে, গোপনাঙ্গের সোয়াব থেকে জানা যাবে করোনা হয়েছে কিনা।

[আরও পড়ুন- করোনা রুখতে এগিয়ে রয়েছে মাত্র তিনটি প্রতিষেধক]

ওই মহিলা পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন। সেই অভিযোগের ভিতিত্তে গ্রেফতার করা হয় ওই ল্যাব টেকনিশিয়ানকে। ঘটনায় মহারাষ্ট্রের মহিলা ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী যশোমতি ঠাকুর ওই ল্যাব টেকনিশিয়ানের কড়া শাস্তি হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন। ওই ল্যাব টেকনিশিয়ান-এর বিরুদ্ধে ধর্ষণ (৩৭৬) ছাড়াও ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেছে মহারাষ্ট্র পুলিশ।

এরআগে হাসপাতালের মধ্যে এক করোনা রোগীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছিল এক চিকিৎসক। উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ের দীনদয়াল হাসপাতালের এই ঘটনায় অভিযুক্ত ওই সরকারি চিকিৎসককে গ্রেফতার করে পুলিশ। করোনা আক্রান্ত ওই তরুণী হাসপাতালের কোভিড ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। তাঁর চিকিৎসা চলছিল। অভিযোগ চিকিৎসা চলাকালীন তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করে অভিযুক্ত চিকিৎসক।

 

Related Articles

Back to top button
Close