fbpx
দেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাংলাদেশের হিন্দু নির্যাতনে কেন্দ্রকে চিঠি অধীরের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বাংলাদেশের হিন্দু নির্যাতনের ঘটনায় কেন্দ্রের দ্রুত হস্তক্ষেপ চাইলেন সংসদীয় নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরি। সোমবার এই মর্মে চিঠি লিখে কেন্দ্রকে সতর্ক হওয়ার আর্জি জানান তিনি। এদিন সোশাল মিডিয়ায় এক টুইট বার্তায় অধীর বলেন, ‘বাংলাদেশে কিছু হিন্দু পরিবার আক্রান্ত হচ্ছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। সেখানে মৌলবাদীরা ভারত সরকারের কাজের প্রতিবাদে অগ্নিসংযােগ ও হিংসাত্মক কাজ করছে। পরিস্থিতির অবনতি রুখতে ভারত সরকারের উচিত দ্রুত বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে এ নিয়ে বৈঠকে বসা।’

উল্লেখ্য, গত রবিবার ফেসবুকের একটি পোস্টকে ঘিরে বাংলাদেশের কুমিল্লায় হিন্দুদের বাড়িঘর ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। বিকেলে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা থানার ৪নং পূর্ব ধইর ইউনিয়নের কোরবানপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ফলে সেখানকার হিন্দু পরিবারের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়। ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) আজিমুল আহসান।

জানা গিয়েছে, আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বনকুমার শিবের অফিসেও। হামলা ও ভাঙচুর চালানো হয়েছে  ৯/১০টি পরিবারের বসতঘরে। আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা।

এদিকে বাড়িঘর ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ছবি ও ভিডিও মুহূর্তের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে তাৎক্ষণিকভাবে ছুটে যায় স্থানীয় বাঙ্গরা থানার পুলিশ। এরপর কুমিল্লা জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামসহ প্রশাসনের বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শনিবার (৩১ অক্টোবর) কোরবানপুরের এক ব্যক্তির ফেসবুকে করা মন্তব্য নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি মামলাও হয়েছে। ওই মামলায় রবিবার (১ নভেম্বর) পুলিশ অভিযুক্তসহ দুজনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। মামলার অন্য আরেক আসামি মুরাদনগর উপজেলার বাসিন্দা।

Related Articles

Back to top button
Close