fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে বিদ্যুতের হাইটেনশন টাওয়ারের মাথায় উঠে পড়লেন মানসিক ভারসাম্যহীন গৃহবধূ

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: হাজারো মানুষের ভিড় আসানসোলের বারাবনি থানার ভানোড়া মোড়ে। বিশাল বিদ্যুতের হাইটেনশন টাওয়ারের একবারে মাথায় বসে বসে বসে পা দোলাচ্ছেন এক মহিলা। শাড়ি পড়া ওই মহিলা টাওয়ারের এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে ঘুরেও বেড়াচ্ছেন। নিচে দাঁড়িয়ে থাকা হাজারো মানুষেরা বুঝতে পারছেন না কি করবেন।  তাদের মনে হচ্ছে, এই বুঝি পা হড়কে নিচে পড়লো। বা হয়তো ৩৩ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের তারে লাগলো। এলাকার বাসিন্দাদের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বারাবনি থানার পুলিশ। ততক্ষণে দমকল ও বিদ্যুত দফতরের লোকেরাও সেখানে পৌঁছেছেন। কিন্তু কারোরই কিছু করার ছিলো না। ঘন্টা পাঁচেক পর মহিলা নিজেই নেমে আসেন টাওয়ারের মাথা থেকে। স্বস্তি ফিরে পায় পুলিশ ও এলাকার বাসিন্দারা।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বারাবনি থানার ভাসকাজুড়ি গ্রামের বাসিন্দা ওই মহিলার নাম রায়মনি টুডু(৩০)। স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে সে রবিবার রাতে বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়ে। তারপর থেকেই সে নিঁখোজ। স্বামীর সঙ্গে মনমালিন্যের কারণে সে বাড়িতে ৬ মাসের শিশু পুত্রকে রেখেই উধাও হয়ে যায়।

রায়মনির স্বামী ভরত হাঁসদা বলেন, স্ত্রী মানসিক ভারসাম্যহীন। মাঝে মাঝেই রাত বিরতে সে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। আবার নিজের ফিরে আসে বাড়িতে। কিন্তু সোমবার ভিন্ন ঘটনার সাক্ষী থাকতে হলো রায়মনির ভাসকাজুড়ি গ্রামকে। তার এই কান্ডকারখানায় পুলিশ প্রশাসন থেকে স্থানীয় বাসিন্দা ও পরিরাবের লোকেদের নাকানাচোবানি খেতে হলো।

[আরও পড়ুন- একটানা কয়েক ঘন্টার বৃষ্টিতে দিনহাটার বিভিন্ন এলাকা  জলমগ্ন]

এদিন সকালে ভানোড়া মোড় সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দারা দেখেন,  ৭০ ফুট উপরে হাইটেশন বিদ্যুতের টাওয়ারে মাথায় চড়ে বসে আছে রায়মনি। সেখানে বসে পা দোলাচ্ছে সে। টাওয়ারের এতটাই উপরে ছিলো যে,  রায়মনিকে ভালোভাবে দেখা যাচ্ছিল না। আবার নিচের আওয়াজও উপরে যাচ্ছিলো না। পুলিশ ও দমকলকর্মীরা অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে হাজির  থাকলেও পরিস্থিতির ওপর নজর রাখা ছাড়া কিছুই করার ছিল না। ৫ ঘন্টা পরে অবশ্য নিজের খেয়ালেই রায়মনি নিচে নেমে আসে।

এলাকার বাসিন্দাদের মতে , রবিবার রাতেই কোন সময়ে হয়তো এই টাওয়ারে চড়ে বসেছিলো রায়মনি। কিন্তু এদিন সকালে বেলা বাড়তেই লোহার টাওয়ার গরম হয়ে উঠে। রোদ বাড়তে থাকে। যে কারণে সেখানে বসে থাকা যাচ্চিল না বলে সে নিজেই আস্তে আস্তে নিচে নেমে আসে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close