fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চিকিৎসক দিবস উপলক্ষ্যে এক মাস ব্যাপি শতাধিক বৃক্ষরোপণের কর্মসূচী  

জেলা প্রতিনিধি, দিনহাটা: করোনা মহামারীর মধ্যেও চিকিৎসক দিবসে এক মাস ব্যাপি  শতাধিক বৃক্ষরোপণের কর্মসূচী নিল আমার দিনহাটা  ওয়েলফেয়ার  অর্গানাইজেশন। সংগঠনের পক্ষ থেকে বুধবার দিনহাটা শহরের বিভিন্ন স্থানে  কর্মসূচী প্রথম দিনই ১৫টি বৃক্ষরোপণ করা হয়। এদিন সংগঠনের এক মাসব্যাপি এই বৃক্ষরোপণ কর্মসূচীর সূচনা লগ্নে উপস্থিত ছিলেন দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে দুই শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ বিপ্লব বন্দ্যোপাধ্যায়, বিভাস রায় ছাড়াও  চিকিৎসক অজয় মণ্ডল, পরিবেশ প্রেমী গাছ পাগল বলে পরিচিত উমাশঙ্কর সরকার, আয়োজক সংস্থার সম্পাদক সঞ্জিত কর্মকার, ভাস্কর মজুমদার, রণদীপ বোস,  রবীন বর্মন, পৌষালী দত্ত, অজয় অধিকারী, সৌম্যদীপ মুখোপাধ্যায়  প্রমুখ।

আরও পড়ুন:সুন্দরবনে পানীয় জলের দাবিতে কলসি নিয়ে অবরোধ মহিলাদের

সংগঠন সূত্রে জানা গেছে, বর্তমান এই কঠিন সময়কালে সবুজায়নের পাশাপাশি পরিবেশকে  রক্ষা করতে সারা বছর তারা বৃক্ষরোপণ করে থাকেন। বৃক্ষরোপণের পাশাপাশি সেই গাছকে বড় করে তুলতেও তারা সমানভাবে পরিচর্যা করে থাকেন।  চিকিৎসক দিবস উপলক্ষ্যে এক মাসব্যাপী তারা দিনহাটা শহরের বিভিন্ন স্থানে শতাধিক চারা গাছ রোপণ করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। সেই উপলক্ষ্যে কর্মসূচীর প্রথম দিনই বেশ কিছু চারা গাছ রোপণ করা হয়। এক মাস ব্যাপী যে চারা গাছ রোপন করা হবে সেগুলো কেউ সুষ্ঠুভাবে পরিচর্যার ব্যবস্থা করেন তারা।

সংগঠনের সম্পাদক সঞ্জিত  কর্মকার জানান, এক মাস ব্যাপী এই বৃক্ষরোপণের পাশাপাশি আগামীতে গাছগুলোকে সুষ্ঠুভাবে বড় করে তুলতে তারা সব রকমের উদ্যোগ চেষ্টা করছেন। চিকিৎসকদের সম্মান জানাতে এদিন তিন চিকিৎসকের উপস্থিতিতে তারা এই কর্মসূচী শুরু করেন।

আরও পড়ুন:বেসরকারি বাস রাস্তায় না নামানোর সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা হাইকোর্টে

দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসক বিপ্লব বন্দ্যোপাধ্যায়, চিকিৎসক অজয় মণ্ডল প্রমুখ বলেন, বিধানচন্দ্র রায়ের জন্মদিন ও মৃত্যু দিন উপলক্ষে ১ জুলাই চিকিৎসক দিবস উপলক্ষ্যে সংগঠনের সদস্যরা পরিবেশকে দূষণের হাত থেকে রক্ষা করতে সবুজায়নের লক্ষ্যে এক মাসব্যাপী বৃক্ষরোপণের যে কর্মসূচী নিয়েছে তা যথেষ্ট প্রশংসার যোগ্য। বৃক্ষরোপণের পাশাপাশি সেগুলিকে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য তারা যথেষ্ট ভাবে ব্যবস্থা নিয়েছে বলেও তিনি জানান। সংগঠনের এই উদ্যোগকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন চিকিৎসকরা।

Related Articles

Back to top button
Close