fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নেশার দ্রব্য চেয়ে না পেয়ে কাটারি দিয়ে গলা কেটে দিয়ে মাকে খুন করল ছেলে

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান :  নেশার দ্রব্য চেয়ে না পেয়ে কাটারি দিয়ে কুপিয়ে মাকে খুন করলো ছেলে। মৃতার নাম বন্দনা সরকার (৫৫)। শুক্রবার সকালে নজিবিহীন এই ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের  মেমারি থানার মণ্ডলগ্রামের পূর্ব পাড়ায়। বেলায় মেমারি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। অভিযুক্ত ছেলে তাপস সরকারকে গ্রেফতার করে পুলিশ খুনের ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে খুনের ঘটনায় ব্যাবহৃত কাটারিটি।মাকে হত্যাকারী ছেলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন এলাকাবাসী।

 

 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে , মন্ডল গ্রামের পূর্ব পাড়ার মাটির দেতলা বাড়িতে বসবাস নিম্নবিত্ত সরকার পরিবারের।জীবিকা নির্বাহের জন্য ষাঠ উর্ধ্ব পরিবার কর্তা গোপাল সরকার গরু ও ছাগল প্রতিপালন করেন । নিজেদের ১০ কাঠা জমির চাষবাসও দেখভাল করেন বৃদ্ধ গোপালবাবু । তাঁর স্ত্রী বন্দনাদেবী সাধারণ গৃহবধূ ।এই দম্পতির একমাত্র ছেলে বছর ২৫ বয়সী তাপস আগে একটি কারখানায় কাজ করতো। কয়েক বছর হল সে টোটো কিনে নিজেই টোটো চালানো শুরু করে । প্রতিবেশীরা বলেন ,ইদানিং তাপস নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ে । নেশাগ্রস্ত হয়ে সে প্রায়শই বাড়িতেও অশান্তি করতো।প্রতিবেশীরা বলেন , এদিন মায়ের কাছে নেশাদ্রব্য চেয়ে না পেয়ে তাপস নিজেই নিজের মাকে খুন করেছে ।

 

 

 

মৃতার স্বামী গোপাল সরকার এদিন বলেন , সকালে তাঁর স্ত্রী বন্দনাদেবী ঘরেই ছিলেন। তিনি গিয়েছিলেন গোয়ালঘরে।ওই সময়েই তাঁর ছেলে তাপস মায়ের সঙ্গে নেশার দ্রব্য চাওয়া শুরু করে । তা দিতে না পারায় ছেলে তাপস কাটারি নিয়ে তাঁর মায়ের উপরচড়াও হয় ।এরপর নিজের মায়ের গলাতেই ধারালো কাটারির কোপ বসিয়ে দেয় ছেলে । গোপালবাবু বলেন, ঘটনাস্থলেই তাঁর স্ত্রী বন্দনাদেবীর মৃত্যু হয়।গোপালবাবু এদিন আরও বলেন ,তাঁর ছেলে তাপস নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়াতেই এতবড় সর্বনাস ঘটেগেল । তিনি জানান , টোটো চালিয়ে তাঁর ছেলে নিজের  খরচ চালাতো। লকডাউনের সময়ে কয়েকমাস টোটো চালানো বন্ধ রাখতে হয় ।সেই কারণে রোজকারপাতিও বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ছেলের মানসিক অবসাদ তৈরি হয় । নেশা করে কখনও বাড়িতে আবার কখনও গ্রামের শ্মশানের দুয়ারে পড়ে থাকতো। গোপাল বাবু বলেন , নেশার দ্রব্যর জন্য ছেলে যে এমন নৃশংসভাবে নিজের মাকে খুন করে বসবে তা তিনি কল্পনাও করতে পারেননি । এই বিষয়ে এসডিপিও আমিনুল ইসলাম খান বলেন,পরিবার সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গিয়েছে ছেলে তাপসই মাকে খুন করেছে। অভিযুক্ত ছেলেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

Related Articles

Back to top button
Close