fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কচুদরম গ্রামবাসীর সাহসী পদক্ষেপে ধরা পড়ল এক ডাকাত, গুলি চালিয়ে পালাল সহযোগি বাহিনী

নুর আহমদ চৌধুরী, সোনাই: বৃহত্তর সোনাইয়ে পর পর ডাকাতির ঘটনায় অবশেষে সাফল্য আসল জনতার হাত ধরেই। সাহসী পদক্ষেপে রবিবার মাঝরাতে কচুদরম দ্বিতীয় খণ্ডে গ্রামবাসীর হাতে ধরা পড়ল এক ডাকাত। জনতার মারে আহত হয় এই ডাকাত বর্তমানে শিলচর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অন্যদিকে মাঝরাতে জনতার তাড়া খেয়ে প্রাণ নিয়ে পালালেন কম করে আরও দশ জনের ডাকাত দল।

জানাগেছে, রাত একটা নাগাদ দশ-বারো জনের ডাকাত দল স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রাজন উদ্দিন লস্করের ঘরে হানা দেয়। ঘরের সব সদস্য ঘুমে থাকলেও তখনও জাগ্রত ছিলেন রাজনের ছেলে আল আমিন লস্কর। আল আমিন ঘরের বাইরে নড়-চড় ও শব্দের আঁচ করে তাঁর বাবাকে অবগত করান বিষয়টি। বাপ-বেটা দরজার ছিদ্র দিয়ে দেখতে পান গ্রিলের বাইরে অস্ত্র হাতে দুই ব্যক্তি দাঁড়িয়ে আছে। রাজন উদ্দিন সঙ্গে সঙ্গে ফোনে বিষয়টি অবগত করান তাঁর ছোট ভাই ফেকন উদ্দিন লস্করকে। ফেকনের বাড়ি ছিল কিছুটা দূরে।মেকনই উদ্যোগ নিয়ে মানুষ জড়ো করে পালটা অভিযানে নেমে পড়েন দ্রুত। তারা অভিযানে নেমে বাড়ির ফটকের বাইরে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখতে পান সাত-আট জনের ডাকাত বাহিনী। জনতার অতর্কিত ও অপ্রত্যাশিত অভিযানে ডাকাত দলের সব সদস্য পালাতে সক্ষম হলেও আক্রমণে আহত হয়ে ধরা পড়ে একজন।পালনোর সময় ডাকাত দল চার রাউন্ড গুলি ছূড়েছে বলে জানান গ্রানবাসীরা।

আরও পড়ুন: লক্ষীপুরে পর্যালোচনা সভা ও পয়লাপুলে ড্রেন নির্মাণের সূচনা করলেন বিধায়ক

উল্লেখ্য, গত ২১ জানুয়ারি একইভাবে মেকনের ঘরে ডাকাতদল হানা দিয়ে সর্বস্ব লুঠ করে পালায়। অন্যদিকে রবিবার রাতের এসব খবর নিয়ে অপর যুবক রতন আহমদ কচুদরম থানায় গেলে জনৈক কনস্টেবলের রোষানলে পড়েন বলে অভিযোগ করা হয়েছে। রতন মোবাইল ফোম ছোড়ে ফেলে ভেঙে দিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। জানাগেছে, পরে বিষয়টি ওসি মনির উদ্দিন লস্কর নিয়ন্ত্রণে আনেন।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে পর্যায়ক্রমে ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনা পর্যবেক্ষণ করেন ডিএসপি ভার্গব গোস্বামী, এডিশনাল এসপি জগদিশ দাস। সরেজমিনে গিয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন উপাধ্যক্ষ আমিনুল হক লস্কর। সাধারণ মানুষ পুলিশের ভূমিকা নিয়ে উপাধক্ষের কাছে নালিশ জানিয়ে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানান। খোঁজ নেন এআইইউডিএফ নেতা করিম উদ্দিন বড়ভুঁইয়া। আটক ডাকাতটির আহত ও অজ্ঞান থাকার কারনে এপর্যন্ত পরিচয় উদ্ধার সম্ভব হয়নি।

Related Articles

Back to top button
Close