fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা, আমফানে দুর্গতদের জন্য ২০,০০০ টাকা দিলেন সংস্কৃতের শিক্ষক

ভাস্করব্রত পতি, তমলুক : তিনি সংস্কৃত বিষয়ের শিক্ষক। শিক্ষকতাই তাঁর ধ্যান জ্ঞান। সেইসঙ্গে মনের কোনে লুকিয়ে রেখেছেন একটা অদ্ভুত কোমল হৃদয়। আর তাই, এই কোরোনা উদ্ভুত লকডাউন পরিস্থিতিতে মানুষের দুরবস্থা দেখে তাঁর হৃদয় কেঁপেছে। গোদের ওপর বিষফোঁড়া, আমফান ঝড়ঝঞ্ঝাতে বহু মানুষের নাজেহাল অবস্থাও তাঁকে কষ্ট দিয়েছে।

 

 

তিনি হেরম্বনাথ চক্রবর্তী। করোনা এবং আমফান ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের সেবার জন্য দিলেন কুড়ি হাজার টাকা। ভারত সেবাশ্রম সংঘের ঝাড়গ্রাম জেলার পুখুরিয়া শাখার অধ্যক্ষ মহারাজের হাতে এই টাকার চেক তুলে দেন কোরোনা এবং আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সেবাকার্যের জন্য।

 

 

 

ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুর ব্লকের নয়াবসান জনকল্যান বিদ্যাপীঠ এর শিক্ষক এই হেরম্বনাথ চক্রবর্তী। তিনি জানান, বাঁকুড়া ‘বিশ্ব প্রেমিক সঙ্ঘ’ এর অধ্যক্ষ স্বামী প্রশান্তানন্দ মহারাজজীর অনুপ্রেরণাতে এই রকম সেবা কার্য তিনি দীর্ঘ দিন ধরে করে আসছেন। এই কাজ মানব সমাজের পক্ষে যেমন কল্যাণ কর, সেই রকম তাঁর ব্যক্তি জীবনের পক্ষে আশীর্বাদ স্বরূপ।

 

 

হেরম্ববাবুর বাড়ি বাঁকুড়া জেলার তালডাংরা থানার হাড়মাসড়া গ্রামে। তাঁর বাবা তারানন্দ চক্রবর্তী ছিলেন বাঁকুড়া জেলার সারেঙ্গা থানার অন্তর্গত জামবনী উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক। ২০০১ সালে তিনি তৎকালীন রাষ্ট্রপতি এর কাছ থেকে নতুন দিল্লির বিজ্ঞান ভবনে ‘জাতীয় শিক্ষক’ এর সম্মান পান। ২০১৯ এ কলকাতা সংস্কৃত কলেজ থেকে তিনি বিশেষ সাম্মানিক পেয়েছিলেন।

 

 

তাঁর এই ধরনের কাজে তাঁর বাবা সবসময়ই পাশে থেকেছেন বলে জানান তিনি। ২০০৬ তে চাকরিতে যোগদানের পর থেকে তিনি শিক্ষাদানের পাশাপাশি মানবসেবায় নিজেকে যুক্ত করেছেন। ভবিষ্যতে এভাবেই সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর ব্রত নিয়ে এগিয়ে যেতে চান সবসময়ই।

Related Articles

Back to top button
Close