fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সাহায্যের আর্জি, ব্রেন টিউমারের অপারেশনের টাকা নেই , অথৈ জলে পরিবার

ময়নাগুড়ি: একদিকে লকডাউনে কর্মহীন হয়ে পরিবার চালানো দুষ্কর হয়ে পড়েছে দিনমজুর রঞ্জিতের । অপরদিকে স্ত্রীর ব্রেইন টিউমারের অপারেশনের জন্য বড় অংকের টাকা কোথা থেকে আসবে সেই চিন্তা ঘুম কেড়েছে তার । এই পরিস্থিতিতে সরকারিভাবে অথবা অন্য কোনো সংগঠনের পক্ষ থেকে সাহায্য পেলে তবেই চিকিৎসা হতে পারে তার স্ত্রীর । অন্যথায় মৃত্যু ছাড়া গতি নেই বলে জানায় রঞ্জিত ।

ময়নাগুড়ি ব্লকের চূড়াভান্ডার গ্রাম পঞ্চায়েতের রানিরহাট মোড়ে বৃদ্ধ মা , স্ত্রী ও দুই শিশুসন্তানসহ পাঁচ সদস্যের পরিবার রঞ্জিতের । ভিটেবাড়ি ছাড়া কিছু নেই তার । কাঠমিস্ত্রির কাজ ও মানুষের বাড়িতে দিনমজুরের কাজের উপর চলে তার সংসার । প্রায় দীর্ঘ আট বছর ধরে রঞ্জিতের স্ত্রী সুলতা মন্ডল ব্রেনের সমস্যায় ভুগছে । আর্থিক অসচ্ছলতা এবং কুসংস্কারের বশে এতদিন ওঝা কবিরাজের চিকিৎসা করিয়েছে তারা । অবশেষে আত্মীয়-স্বজনের সাহায্যে মাস তিনেক আগে ডাক্তারের দ্বারস্থ হয় তারা । কিন্তু ডাক্তারি রিপোর্টে ব্রেন টিউমার ধরা পড়ায় আকাশ ভেঙে পড়ে তাদের মাথার উপর । জলপাইগুড়ি ও শিলিগুড়িতে দুই স্পেশালিস্ট ডাক্তারের চিকিৎসায় আলাদা আলাদা রিপোর্ট করেও একই সমস্যা ধরা পড়ে । যার অপারেশন খরচের জন্য লক্ষাধিক টাকা প্রয়োজন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন । কিন্তু চিকিৎসার খরচ জোটাতে ভিটেমাটি বিক্রি করে পথে বসতে হবে পরিবারটিকে । যা তাদের কাছে মৃত্যুর থেকে কম কিছু নয় । তবুও লকডাউন শেষে দক্ষিণ ভারতে রোগীকে নিয়ে গিয়ে অপারেশন করার কথা ভাবছে পরিবারটি । এই পরিস্থিতিতে সরকারী এবং বেসরকারী ভাবে সাহায্যের আর্জি জানিয়েছে তারা ।

 

স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য সুভাষ মন্ডল বলেন , ” আমার বুথের মহিলা লতা মন্ডল অনেকদিন ধরে ব্রেন টিউমারে ভুগছে । তারা আমার কাছে এসেছিল । আমি যতটুকু পারি সাহায্য করেছি । সরকারি সাহায্যের জন্য আমি আবেদন করব । ডাক্তার জানিয়েছেন চিকিৎসার জন্য প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা প্রয়োজন হবে । টাকার অভাবে পরিবারটি পরিবারটি চিকিৎসা করাতে পারছেন না । আমি চাই কোন সহৃদয় ব্যক্তি এবং সংগঠন যেন পরিবারটির পাশে দাঁড়ায় । তাহলে তারা উপকৃত হবে ।’

Related Articles

Back to top button
Close