fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কাটোয়ায় শ্বশুর বাড়িতে রহস্য মৃত্যু বধূর

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমানঃ শ্বশুর বাড়িতে রহস্যজনক মৃত্যু হল এক বধূর।  মৃতার নাম সন্দীপা প্রধান (২০)। পূর্ব বর্ধমানের
কাটোয়ার কাশিগঞ্জ পাড়ায় বধূর শ্বশুরবাড়ি ।  সোমবার সকালে শ্বশুর বাড়ির ঘর থেকে উদ্ধার হয় বধূর ঝুলন্ত মৃতদেহ।বধূ আত্মহত্যা করেছে বলে তাঁর স্বামী দাবি করলেও তা মানতে চাননি বধূর বাবার বাড়ির সদস্যরা। তাঁদের দাবি সন্দীপাকে প্রাণে মেরে ঝুলিয়ে দিয়েছে জামাই বাপ্পা প্রধান।মৃতদেহ ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে কাটোয়া থানার বধূর মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে , কাশিগঞ্জপাড়া নিবাসী বাপ্পা প্রধান পেশায় কাঠ মিস্ত্রি।এদিন তিনি বলেন, “কাজের জন্য দিনের বেশিরভাগ সময়টাই তিনি বাড়ির বাইরে থাকেন। রবিবার রাতে তাঁর স্ত্রী ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে বন্ধুর সঙ্গে চ্যাট করছিলেন । তা নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে তাঁর অশান্তি হয় ।রাগের মাথায় স্ত্রীর মোবাইল ফোনটি তিনি আছড়ে ভেঙে দেন বলে স্ত্রী মনক্ষুন্ন হয় । বাপ্পা বলেন, এরপর তিনি ঘুমিয়ে পড়লে তাঁর স্ত্রী গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে ঝুলে আত্মঘাতী হয় । স্ত্রীকে খুন করেনি বলে বাপ্পা দাবি করেছেন । ”

যদিও বাপ্পা ও তাঁর পরিবার সদস্যদের কোনও বক্তব্য মানতে চাননি বধূর বাবা সন্দীপ বহরান । তিনি দাবি করেন ,“তাঁর মেয়ে আত্মহত্যা করতে পারেনা। তাঁর মেয়ে সন্দীপাকে জামাই বাপ্পা-ই প্রাণে মেরে ঝুলিয়ে দিয়েছে বলে সন্দীপ বহরান পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন । ”কেন জামাই সন্দীপাকে প্রাণে মেরে ঝুলিয়ে দেবে সেই বিষয়ে কিছু খোলসা করেন নি বধূর বাবার বাড়ির কোনও সদস্য ।

কাটোয়া থানার পুলিশ বধূর মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ।কাটোয়া থানার এক পুলিশ কর্তার বক্তব্য , অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে । তার ভিত্তিতে পরবর্তি আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close