fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আব্বাস এবং তৃণমূল সংঘর্ষের জেরেই কি ভাঙড়ের ওসি বদল? গুঞ্জন তুঙ্গে

ফিরোজ আহমেদ, ভাঙড়: উৎসবের মরসুমের  মাঝে বারুইপুর পুলিশ জেলার কয়েকটি থানার ওসি বদল ঘিরে তুঙ্গে জল্পনা।বিশেষ করে ভাঙড় থানার ওসি বদল ঘিরে ভাঙড়ের বিভিন্ন মহলে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। সম্প্রতি ভাঙড়ের বিভিন্ন এলাকায় পিরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর অনুগামীদের সঙ্গে শাসকদলের একাধিক সংঘর্ষের ঘটনার জেরেই কি ভাঙড়ের ওসি বদল হল?এই প্রশ্নই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে ভাঙড়ের আনাচে কানাচে।
পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, ভাঙড় থানার ওসি চন্দ্রশেখর ঘোষালকে বদলি করা হল ক্যানিং মহাকুমার ঝড়খালি কোস্টাল থানায়। তাঁর জায়গায় ভাঙড় থানায় আসছেন জীবনতলা থানার ওসি সমরেশ ঘোষ। ঝড়খালি কোস্টাল থানার ওসি প্রশান্ত দাসকে জীবনতলা থানার ওসি করা হয়েছে। গোসাবা থানার ওসি অভিজিৎ পালকে বদলি করা হয়েছে বকুলতলা থানায়। বকুলতলা থানার ওসি সৌমেন বিশ্বাসকে গোসাবা থানায় বদলি করা হয়েছে।
যে কটি থানার ওসি বদল হয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল ভাঙড় থানা।মাত্র দেড় বছর আগে ভাঙড় থানায় ওসি হয়ে আসেন চন্দ্র শেখর ঘোষাল।এই দেড় বছরে তেমন কোন বড় ঘটনা বা রাজনৈতিক সংঘর্ষ হয়নি।যদিও সম্প্রতি ভাঙড়ের বিভিন্ন এলাকায় পিরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর অনুগামীদের সঙ্গে শাসকদলের একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। শাসকদলের দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর এবং কর্মীদের মারধরের অভিযোগ ওঠে আব্বাস অনুগামীদের বিরুদ্ধে। ক্রমাগত এই গোলমালের জেরেই ভাঙড় থানার ওসি বদল বলে মনে করছেন অনেকেই।
সিপিএমের জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য তুষার ঘোষ বলেন, “ভাঙড়, গোসাবা-সহ বিভিন্ন জায়গা রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত। পুলিশ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে পারেনি। পুলিশকে সামনে রেখে শাসকদল একনায়কতন্ত্র কায়েম করতে চাইছে। শাসকদলের হয়ে কাজ করতে না পারলেই তাদের রোষানলে পড়ে এ ভাবে পুলিশকে বদলি হতে হচ্ছে।” বারুইপুর পুলিশ জেলার এক আধিকারিক অবশ্য জানান এটা রুটিন বদলি। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওই সব আধিকারিকদের নির্দিষ্ট থানার দায়িত্বভার বুঝে নিতে বলা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close