fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মুখ্যমন্ত্রীর রাজত্বে বিধানসভার অধিবেশন কম হয়: আব্দুল মান্নান

পাপ্পা গুহ, উলুবেড়িয়া: মুখ্যমন্ত্রীর রাজত্বে বিধানসভার অধিবেশন কম হয়। এক কথায় বলতে গেলে বিধানসভার অধিবেশন হয় না। সারাবছর ১০ দিনের জন্য অধিবেশন বসে যার মধ্যে ৬ দিন শোকপ্রস্তাবের জন্য আর একদিন মুখ্যমন্ত্রীর ভাষণের জন্য। ফলে আমাদের বিধানসভার অধিবেশন হয় শুধু নামমাত্র আইন রক্ষার জন্য। রবিবার হাওড়ার শ্যামপুরে ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করতে এসে এই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করলেন বিধানসভার বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান।

এদিন পরির্দশন দলে অন্যদের মধ্যে ছিলেন বামফ্রন্টের পরিষদীয় দলনেতা ডঃ সুজন চক্রবর্তী, বিধায়ক অসিত মিত্র, উলুবেড়িয়া পুরসভার বিরোধী দলনেতা সাবির উদ্দিন মোল্লা প্রমূখ। এদিন আব্দুল মান্নান ঘূর্ণিঝড়ের এই বিপর্যয়কে জাতীয় বিপর্য়য় হিসাবে ঘোষণার দাবি জানান। এদিন তিনি স্থানীয় প্রশাসনের কাজকর্মে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন প্রথমদিন থেকেই প্রশাসন এটাকে অবজ্ঞা করছে। তিনি অভিযোগ করেন ঘূর্নীঝড়ে এত বাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হলেও তাদের পূর্নবাসনের কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি এমনকি তাদের জন্য ত্রাণের ও কোন ব্যবস্থা হয়নি। আমাদের কাছে অনেকে অভিযোগ জানিয়েছে আমরা সেগুলো মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠাবো। এইসমস্ত অব্যাবস্থা নিয়ে প্রয়োজনবোধে বিধানসভার বাইরে প্রতিবাদ করা হবে বলে জানান আব্দুল মান্নান।

 

 

তিনি বলেন প্রাকৃতিক বিপর্যয় মুখ্যমন্ত্রীর হাতে নেই এটা ঠিক কিন্তু বিপর্যয়ের পর তার দল প্রশাসনের যে কাজটা করার কথা সেটাও তারা না করে চুপ করে বসে আছে এটা খুব দুুুর্ভাগ্যজনক।

 

 

অন্যদিকে এদিন সুজন চক্রবর্তী অভিযোগ করেন, ত্রাণ নিয়ে মানুসের অভিযোগ যথার্থ। ঘূর্নিঝড়ের আগাম পূর্বাভাস থাকলেও কেন এত দূর্ভোগ হল এটা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বাম নেতা। এদিন তিনি বলেন ঝড়ে যেসমস্ত বিদ্যুৎ এর পোল ভেঙে পড়ছে তার অধিকাংশ নতুন, তার অভিযোগ কাটমানি আর লুটের ফলেই এই চিত্র। এদিন তিনি বলেন এখন সরকারের উচিত দলমত নির্বিশেষে মানুষের পাশে এসে দাড়ানো।

Related Articles

Back to top button
Close