fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খপশ্চিমবঙ্গ

আগামী সপ্তাহের শেষে উপনির্বাচনের প্রচার শুরু করবেন অভিষেক

 নিজস্ব প্রতিনিধি:মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই বলেছিলেন পুজোর দিনগুলিতে চারটি বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের প্রচার স্থগিত রাখা হবে দলের পক্ষ থেকে। সেইমতো গত কয়েকদিন বন্ধ ছিল প্রচার। উল্লেখ্য ৩০ অক্টোবর খড়দহ, শান্তিপুর, গোসাবা ও দিনহাটা-এই চার কেন্দ্রের উপনির্বাচন। আর দুর্গাপুজো মিটতেই সেই নির্বাচনের প্রচারের সূচি কার্যত চূড়ান্ত করে ফেললেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

আগামী সপ্তাহের শেষ থেকেই প্রচার শুরু করতে পারেন অভিষেক। প্রাথমিকভাবে ঠিক হয়েছে ২৩ অক্টোবর থেকে প্রচার শুরু করবেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ মেনে গত ১০ থেকে ২০ তারিখ পর্যন্ত প্রচার করা হয়নি। তবে হয়েছে জনসংযোগ। ২০ অক্টোবর লক্ষ্মীপুজো। এরপর থেকেই শুরু হচ্ছে অভিষেকের প্রচার। প্রথমেই খড়দহ, আর ওইদিনই গোসাবায় প্রচার করবেন তিনি। ২৫ অক্টোবর দিনহাটা এবং ২৬ তারিখ প্রচারের জন্য অভিষেকের যাওয়ার কথা শান্তিপুর।অভিষেকের প্রচার নিয়ে ইতিমধ্যেই তৃণমূলের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। এর পাশাপাশি দলের সিনিয়র নেতাদেরও প্রচারের সূচি তৈরি হচ্ছে।

সেই সঙ্গে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারের কথা ভেবে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে দলের পক্ষে থেকে। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে এই চার কেন্দ্রেই ভোট হয়েছিল। কিন্তু করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান খড়দহের তৃণমূল প্রার্থী কাজল সিনহা। ফলাফল প্রকাশের পরে দেখা যায় তিনিই ওই কেন্দ্রে জয়ী হয়েছেন। কিন্তু তাঁর মৃত্যুতে খড়দহ কেন্দ্রটি বিধায়ক শূন্য হয়ে যায়। করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার গোসাবার তৃণমূল বিধায়ক জয়ন্ত নস্করও।

এছাড়া শান্তিপুর এবং দিনহাটা কেন্দ্রে জয়ী হন বিজেপির দুই সাংসদ জগন্নাথ সরকার ও নিশীথ প্রামাণিক। পরে সাংসদ পদ ধরে রেখে বিধায়ক পদ ছেড়ে দেন তাঁরা।  তাই এই দুই কেন্দ্রেও ভোট হবে। ফলাফল প্রকাশ হবে ২ নভেম্বর। চারটি কেন্দ্রেই জয় নিয়ে আশাবাদী তৃণমূল। তবু প্রচারে খামতি রাখতে চায় না তারা। সেই সূত্রেই প্রচারে নামছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

Related Articles

Back to top button
Close