fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

দেশে একদিনে আক্রান্ত প্রায় ৬৪ হাজার, বাড়ছে করোনাজয়ীর সংখ্যাও

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: দেশে করোনা সংক্রমণের লাগামহীন বৃদ্ধি অব্যাহত। আগস্টের শুরু থেকেই দেশে প্রায় প্রতিদিন ৬০ হাজারের বেশি মানুষ নতুন করে করোনা আক্রান্ত হচ্ছিলেন। সেই ধারা অব্যাহত থাকল বৃহস্পতিবারও।গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনার কবলে পড়লেন প্রায় ৬৫ হাজার মানুষ। তবে, আক্রান্তের থেকেও বেশি উদ্বেগজনক হল এদিনের মৃতের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে হাজারেরও বেশি মানুষের।সংক্রমণের নিরিখে এখনও বিশ্বে তৃতীয় স্থানে ভারত। তবে শুধু আগস্ট মাসের সংক্রমণের নিরিখে আমেরিকা এবং ব্রাজিলকে অনেকটাই পিছনে ফেলে দিয়েছে এদেশ।

শুক্রবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৬৪ হাজার ৫৫৩ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যা কিনা গতকালের থেকে খানিকটা কম। ফলে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৪ লক্ষ ৬১ হাজার ৯৯১ জন। এদের মধ্যে ১৭ লক্ষ ৫১ হাজার ৫৫৬ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় প্রায় ৫৬ হাজারেরও বেশি মানুষ সুস্থ হয়েছেন। এটিও রেকর্ড। দেশে এখনও চিকিৎসাধীন ৬ লক্ষ ৬১ হাজার ৫৯৫ জন করোনা রোগী। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতের সংখ্যাও বেড়েছে উদ্বেগজনক হারে। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, একদিনে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ১ হাজার ৭ জন। এর ফলে মোট মৃতের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াল ৪৮ হাজার ৪০ জনে। এদিকে গত কয়েক সপ্তাহে উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে করোনা পরীক্ষার সংখ্যাও।

নির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা সামনে রেখে ভারত অনেক দিনই হল কোভিড টেস্টের হার বাড়ানোর উপর জোর দিয়েছে। করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে কেন্দ্র যে টি-থ্রি কৌশল নিয়েছে, তার অন্যতম হল টেস্ট। বাকি দু’টি ট্র্যাক ও ট্রিটমেন্ট। টেস্টের উপর জোর দিলে, আক্রান্তকে দ্রুত চিহ্নিত করে, দ্রুত চিকিত্‍‌সার ব্যবস্থা করা যাবে। সেই টেস্টের হার বাড়াতে বাড়াতে বৃহস্পতিবার (১৩ অগস্ট) নয়া রেকর্ড গড়ে ফেলল ভারত। ইতিমধ্যেই দেশে ২ কোটি ৭৬ লক্ষের বেশি মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮ লক্ষ ৪৮ হাজারের বেশি মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: এবার ভূমিকম্পের আগাম সতর্কতা জানাবে গুগল

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেব অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সব রাজ্য মিলিয়ে ৮ লক্ষ ৩০ হাজার ৩৯১ নমুনার কোভিড টেস্ট হয়েছে। প্রতি ১০ লক্ষের হিসেবে টেস্টের হার ১৯ হাজার ৪৫৩। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এক আধিকারিক জানান, টেস্ট, ট্র্যাক ও ট্রিট কৌশলের উপর নির্ভর করে ভারতের লক্ষ্যমাত্রা, প্রতিদিন ১০ লক্ষ করে কোভিড টেস্ট। তাঁর মতে, দ্রুত রোগ শনাক্তকরণের উপায় হল, টেস্টের হার বাড়ানো। কেন্দ্র, রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি সম্মিলিত ভাবে সেই লক্ষ্যে এগোচ্ছে। যার ফলে, একদিনে রোকর্ড ৮ লক্ষের উপর কোভিড টেস্ট সম্ভব হয়েছে।  রাজ্যে ল্যাবের সংখ্যা না বাড়লে যে এই লক্ষ্যে পৌঁছনো সম্ভব হতো না, তা স্বীকার করে নেয় কেন্দ্র। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে গোটা দেশে মাত্র একটি ল্যাব ছিল, যেখানে করোনা টেস্ট করা যায়। বর্তমানে করোনা টেস্টের ল্যাবের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১,৪৩৩। এর মধ্যে সরকারি ল্যাব ৯৪৭টি। বেসরকারি ল্যাব ৪৮৬টি।

Related Articles

Back to top button
Close