fbpx
কলকাতাশিক্ষা-কর্মজীবনহেডলাইন

কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে শনিবার উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠক করবেন শিক্ষামন্ত্রী

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: কলেজ বিশ্ব বিদ্যালয় নিয়ে শনিবার সিদ্ধান্ত নিতে পরে রাজ্য। এমনটাই সূত্রের খবর। শনিবার ফের রাজ্যের কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় গুলির উপাচার্যদের নিয়ে বৈঠকে বসছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তবে এবার আর অনলাইনে নয়, মুখোমুখি হবে এই বৈঠক। নির্দিষ্ট আলোচ্যসূচি না জানানো হলেও পরীক্ষা, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খোলা এবং প্রথমবর্ষের ভর্তি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হতে পারে বলে মনে করছে উপাচার্যদের একাংশ।
এর আগে কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী পখরিয়াল জানিয়ে ছিলেন ১৫ আগস্ট পর্যন্ত স্কুল কলেজ খোলা যাবে না। তারপরই শিক্ষা মন্ত্রী মেয়াদ বাড়ানোর কোন ঘোষনা না করে বলেছিলেন নির্দিষ্ট দিনেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলি খোলা হবে। কিন্তু বুধবার মুখ্যমন্ত্রীও নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, ‘মনে হচ্ছে জুলাই মাসেও স্কুল খুলবে না, তবে উচ্চমাধ্যমিক হবে।’ তাই শিক্ষা মন্ত্রীর এই বৈঠক কে যথেস্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।
বেশ কিছুদিন ধরে রাজ্যপালের সঙ্গে রাজ্যের বিরোধের প্রত্যক্ষ আঁচ এসে পড়ছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর। এর সর্বশেষ নজীর বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্য পদের মনোনয়ন। এর জেরে রাজ্যপাল লিখিতভাবে উপাচার্যদের নির্দেশ দিয়েছেন, আচার্য হিসাবে তাঁকে যেন সংশ্লিষ্ট নানা বিষয় সরাসরি জানানো হয়। অন্যথায় তা বিধিভঙ্গের সামিল হবে। আবার রাজ্যের নির্দেশ, উপাচার্যরা আচার্যকে কিছু জানালে তা যেন উচ্চ শিক্ষা দফতরের মাধ্যমে জানান। মোটের উপর, উপাচার্যরা প্রত্যেকেই কমবেশি চাপের মধ্যে আছেন।
শনিবারের বৈঠকে রেজিস্ট্রার এবং সহ উপাচার্যদেরও থাকার কথা বলা হয়েছে। এদিকে, চূড়ান্ত সেমেস্টারের পরীক্ষা পদ্ধতি নিয়ে প্রায় সব বিশ্ববিদ্যালয়ই একটা সিদ্ধান্তে আসতে পেরেছে। এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। মঙ্গলবার কমার্সের স্নাতকোত্তরের ফ্যাকাল্টি কাউন্সিলের বৈঠক ছিল। সেখানে কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে পরীক্ষা দেওয়ার মতো পরিবেশ নেই বলে শিক্ষকরা মত প্রকাশ করেন। বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে ইন্টার্নাল অ্যাসেসমেন্ট এবং আগের সেমেস্টারের নম্বর গড় করে দেওয়ার বিষয়টি আপাতত ঠিক করা হয়েছে। অন্যান্য ফ্যাকাল্টির তরফেও নানা প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close