fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

রাজ্যে মহিলা সুরক্ষা সঙ্কটে, ধর্ষকদের ফাঁসির দাবি এবিভিপি’র

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: রাজ্যের মহিলারা ক্রমাগত নরপিশাচদের লালসার শিকার হচ্ছে। আর তাতে এই রাজ্যের মহিলা সুরক্ষা এক বিরাট সংকটের মুখে। তোপ দাগল এবিভিপি। শুক্রবার এবিভিপি’র পক্ষ থেকে রাজ্যের ক্ষমতাসীন সরকারকে নিশানা করে এক বিবৃতি প্রকাশ করে এ কথা জানান হয়।
একই সঙ্গে তারা দোষীদের ফাঁসির দাবি জানান। গত এক সপ্তাহে পশ্চিম মেদিনীপুরে  ৩ টি নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনা সামনে এসেছে। যেখানে  ৭ বছরের শিশু থেকে শুরু করে ৩৫ বছরের মহিলাও রেহাই পায়নি। এ প্রসঙ্গে প্রদেশ ছাত্রী প্রমুখ পায়েল ধর  বলেন, ‘মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মনে রাখবেন প্রত্যেকটা ধর্ষণের ঘটনায় বারংবার আপনার নিশ্চুপ ভূমিকা প্রমাণ করে আপনি মহিলা জাতির কলঙ্ক ছাড়া আর কিছুই নন। মহিলা হয়ে মহিলা সম্মান, সুরক্ষা না দিতে পারেন তাহলে প্রতিবাদ হবে রাজপথে, প্রশাসনকে দিয়ে আটকাতে পারলে আটকে নেবেন।আপনার স্বেচ্ছাচারীতা ও স্বৈরাশাসনের বিনাশ হবে এই রাজ্যের নারীদের হাতেই।’
উল্লেখ্য, বিগত কয়েক দিনে পশ্চিম মেদিনীপুরের তিনটি এ ধরণের নারকীয় ঘটনা ঘটে। প্রথমটি,গত ২৫ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ তারিখে,দুপুর ২ টায় চন্দ্রকোনা রোডের নবকলা তে এক ৭ বছর বয়সী শিশু কন্যা কে শারীরিক নির্যাতন ও যৌন হেনস্থা করা হয়।  অভিযুক্ত আসাদুল্লাহ খাঁন( নাদু)। ধৃত ব্যাক্তিকে গ্ৰেফতার করা হলেও এখনো পর্যন্ত কোনো আইনি প্রক্রিয়া শুরু করা হয়নি।
দ্বিতীয়টি, গত ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ তারিখে রাতে চন্দ্রকোনা রোডের মাংরুল এলাকার এক ৩৫ বছরের মহিলা প্রতিমা মালিক কে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। পরের দিন অর্থাৎ ১লা অক্টোবর সকালে চাষের ক্ষেতে তার দেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকার লোকজন।
তৃতীয়টি গত কালকে অর্থাৎ ১ তারিখেই আবারও হাড় হিম করা দৃশ্য ধরা পরল ডেবরা ব্লকে 6 নম্বর জালিবান্দা অঞ্চলের চন্ডিপুর গ্রামে। এক অজ্ঞাত যুবতীর অর্ধনগ্ন মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায় মাঠের মধ্যে।
বিদ্যার্থী পরিষদ এই সমস্ত নৃশংস হত্যাকাণ্ডের তীব্র প্রতিবাদ জানায়।এবং যেভাবে বারংবার এই রাজ্যের মহিলারা ধর্ষণের শিকার হচ্ছে তাতে অবিলম্বে সমস্ত দোষীদের চিহ্নিত করে ফাঁসি দিতে হবে।
এ বিষয়ে দক্ষিণবঙ্গ প্রদেশ সম্পাদক সুরঞ্জন সরকার বলেন, ‘বাংলার নারী সুরক্ষার ব্যাপারে মাননীয়ার উদাসীনতার ফলস্বরূপ আজকের এই সকল ঘটনার পুনরাবৃত্তি। মাননীয়া উত্তরপ্রদেশের ঘটনা নিয়ে যতটাই সরব, ততটাই নিরব নিজের রাজ্যে পশ্চিমবঙ্গে ঘটে যাওয়া ধর্ষণ এবং হত্যাকাণ্ডের ঘটনা নিয়ে। এই সরকারের শাসনকাল বাংলা তথা বাঙালির কাছে এক কলঙ্কজনক অধ্যায়।’

Related Articles

Back to top button
Close