fbpx
কলকাতাহেডলাইন

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ দফা দাবিতে রাজ্যপালকে স্মারক এবিভিপির

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্যে করোনা পরিস্থিতিতে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের শিক্ষাক্ষেত্রে সমস্ত রকম ফি মুকুব,হোস্টেল ফি মুকুব,
বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের টিউশন ফি হ্রাস, ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি ও স্কলারশিপ, বাড়তি ক্লাস,
ছাত্রছাত্রীদের সঠিক মূল্যায়ন, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্ব-উদ্যোগে প্লেসমেন্ট, যোগা সহ সমসাময়িক শিক্ষাদানে বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রণী ভূমিকা পালন সহ মোট ১২ দফা দাবী নিয়ে মঙ্গলবার এবিভিপি দক্ষিণবঙ্গ (পশ্চিমবঙ্গ)রাজ্য কমিটির পক্ষ থেকে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।
অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ দক্ষিণবঙ্গ প্রান্ত সম্পাদক সুরঞ্জন সরকার এ কথা জানান। পাশাপাশি এবিভিপির পক্ষ থেকে রাজ্যপালকে রাজ্যের বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থা সম্পর্কে অবগত করানো হয়। দীর্ঘ সময় ধরে এবিভিপি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে রাজ্যপালের বৈঠক চলে। বৈঠক শেষে এবিভিপি দক্ষিণবঙ্গ প্রান্ত সম্পাদক সুরঞ্জন সরকার বলেন, ‘আমরা আশা করি এই সংকটকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের যে সমস্যাগুলো দেখা গিয়েছে রাজ্য সরকার সেগুলো সমাধানের চেষ্টা করবে। তাই এ বিষয়ে এবিভিপি দক্ষিণবঙ্গ প্রান্তের পক্ষ থেকে মাননীয় রাজ্যপালের কাছে ১২ দফা দাবি তুলে ধরা হয়। এর জন্যই আজ আমরা রাজ্যপালের হাতে স্মারক তুলে দিই। একই সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ গুলিতেও এদিন এবিভিপি পক্ষ থেকে স্মারকলিপি তুলে দেওয়া হয়।’
তবে স্মারকলিপি তুলে দিতে গিয়ে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় কিছুটা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় এবিভিপিকে। এছাড়াও এবিভিপির পক্ষ থেকে জানান হয় যারা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেসে থাকেন বা হোস্টেলে থাকেন তাদের তিন মাসের ফ্রি মুকুব করা হোক। লকডাউন পরিস্থিতিতে অনেকেই আর্থিক সংকটের মধ্যে রয়েছেন। পাশাপাশি নিজের বাড়ি ছেড়ে অনেকটাই দূরে তারা এসেছেন পঠন-পাঠনের জন্য তাই কে কি রকম অবস্থায় আছে তা জানা সম্ভব নয় তবে আর্থিক সংকটে সবাই আছেন সে কথা ভেবেই ফ্রি মুকুবের কথা বলা হয়। পাশাপাশি যারা স্টাইফেন বা স্কলারশিপ পান তাদের দ্রুত সেই টাকা দেওয়া হোক। ইউজিসির নির্দেশিকা অনুসারে সঠিক মূল্যায়নের মাধ্যমে চূড়ান্ত বর্ষের শিক্ষার্থীদের পদোন্নতি করতে হবে। সব ধরনের ফ্রিজ এক বছরের জন্য মুকুব করতে হবে। সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি ফি ও টিউশন ফি রাস করতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বৃদ্ধি বজায় রাখার সমস্ত নিয়মাবলী পালন করতে হবে। পাশাপাশি যোগব্যায়াম বিপর্যয় পরিচালনা শরীর বিদ্যা প্রতিরক্ষা গবেষণা মহাসাগর বিজ্ঞান বিজ্ঞান খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ইত্যাদি বিষয়ে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় শিক্ষাদানের অগ্রণী ভূমিকা নিতে হবে।
পাশাপাশি এদিন এবিভিপি ন্যাশনাল সেক্রেটারি সপ্তর্শি সর্কার স্কুলগুলি কেও পরিষেবা না দিয়ে ফ্রি নেওয়ার জন্য তোপ দাগেন। তিনি সাফ জানিয়ে দেন যে সকল পরিষেবা স্কুল দিচ্ছে না কখনই সেই টাকা জর করে অভিভাবকদের থেকে নেওয়া উচিত নয়। লোকটা অনেক সময় অনেকেই অনেক ভাবে আর্থিক সংকটে রয়েছে সে ক্ষেত্রে স্কুলগুলোর  নিজেদের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান করা উচিত।

Related Articles

Back to top button
Close