fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ছট পুজোর পুণ্যস্নানে গিয়ে দামোদরে তলিয়ে গেল একাদশ শ্রেণীর তিন পড়ুয়া

শুভেন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়, আসানসোল:  গৃহ শিক্ষকের কাছে পড়ার পরে ছট পুজোর পূর্ণ স্নান সেরে গিয়ে দামোদর নদে তলিয়ে গেল তিন কিশোর। মঙ্গলবার এই ঘটনাটি ঘটে আসানসোলের  রানিগঞ্জ থানার নারায়ণকুড়ির মথুরা চন্ডী ঘাটে দামোদর নদ এলাকায়।

এদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত তাদেরকে দামোদর থেকে উদ্ধার করা যায়নি। পুলিশের উপস্থিতিতে এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে পশ্চিম বর্ধমান জেলার ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট গ্রুপের উদ্ধারকারী দল দামোদর নদীতে তিনজনের খোঁজে তল্লাশি চালায় তল্লাশি চালাচ্ছে বলে জানা গেছে। তলিয়ে যাওয়া তিন কিশোরের নাম হলো রানিগঞ্জ থানার ভগৎ সিং পাড়ার রোশন সিং (১৬), কেজি লেনের অভিষেক মিশ্র (১৫) ও ডালপট্টির অভিষেক মাহাতো (১৭)।  জানা যায় এই তিনজন  রানিগঞ্জের জ্ঞান ভারতী স্কুল নামে এক বেসরকারি স্কুলের একাদশ শ্রেণীতে পড়ে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রানিগঞ্জের ঐ বেসরকারি স্কুলের ৪ পড়ুয়া বন্ধু  এদিন গৃহ শিক্ষকের কাছে পড়তে যাবে বলে বাড়ি  থেকে মোটরবাইক নিয়ে বেরোয়। তারা বাড়িতে বলে যায়, পড়ার পরে তারা একসঙ্গে দামোদর নদীতে স্নান করবে। এরপর সেইমতো  চার বন্ধু মিলে রানিগঞ্জের নারায়ণকুড়িতে মথুরাচন্ডি ঘাটে আসে। সেখানে তারা দামোদর  নদীতে গিয়ে স্নান করতে নামলেও এক বন্ধু বাড়ি  ফিরে আসে বাবার ডাকে। তিনজন রোশন সিং, অভিষেক মিশ্র ও অভিষেক মাহাতো  নদীতে স্নান করতে থাকে।
এদিকে তিনজন দুপুর পর্যন্ত বাড়ি ফিরে না আসায়,তাদের বাড়ির লোকেরা খোঁজ করতে মথুরা চন্ডি ঘাটে আসেন। সেখানে তারা দেখেন, তিনজনের জামা কাপড় সব নদীর পাড়ে রাখা রয়েছে। তারা কেউ নেই। তাদের চিৎকার ও কান্নার শব্দে আশপাশের লোকেরা দৌড়ে আসেন। তারাই প্রথমে তিনজনের খোঁজে জোর তল্লাশি শুরু করে দামোদর নদীতে নেমে। ঘটনার খবর পেয়ে রানিগঞ্জ থানার  পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তিন পড়ুয়ার খোঁজে তল্লাশি শুরু করে স্থানীয়রাই।  এর মধ্যেই জেলা ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্টের বিশেষ দলকে নদীর তল্লাশির জন্য ডাকা হয় পুলিশ তরফে।
মঙ্গলবার সন্ধ্যার শেষ খবর, তিন কিশোরের খোঁজে জোর তল্লাশি চলছে দামোদর নদীতে।  সেখানে  পুলিশ ও স্থানীয় এলাকার বাসিন্দাদের পাশাপাশি  তিন কিশোরের পরিবারের সদস্যরা আছেন।

Related Articles

Back to top button
Close