fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিশ্বভারতীর প্রতিষ্ঠা দিবসে শান্তিনিকেতনে আমন্ত্রণ আচার্য তথা প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীকে

জেলা প্রতিনিধি, বোলপুর: আসন্ন পৌষ উৎসব নিয়ে বুধবার বিশ্বভারতীতে কর্মীপরিষদের একটি বৈঠক ছিল। এইদিন বৈঠকে উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী, কর্মীমন্ডলী, শান্তিনিকেতন ট্রাস্ট, আলাপিনী সমতি সহ বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। করোনা পরিস্থিতিতে কিভাবে এই উৎসব পরিচালনা করা হবে তা নিয়ে এই বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

এদিকে ১৯২১ সালে বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। তাই ২০২১ প্রতিষ্টা শতবর্ষ হিসাবে বিশ্বভারতী তা পালন করতে চলছে। ঠিক হয়েছে আগাম ৮ পৌষ আম্রকুঞ্জে প্রতিষ্ঠা দিবস পালন করা হবে। সেই শতবর্ষ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য বিশ্বভারতীর আচার্য তথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।

এর পাশাপাশি বিশ্বভারতীর প্রধান রাজ্যপাল, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী সহ একাধিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আসতে পারেন ওই অনুষ্ঠানে। ৮ পৌষ বা ২৪ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠা দিবস অনুষ্ঠান শুরু হবে ভোরে বৈতালিক দিয়ে। সকাল ৮.৩০ তে শুরু হবে প্রতিষ্ঠা দিবস অনুষ্ঠান চলবে দু ঘন্টা।
এদিন বৈঠকে ঠিক হয়েছে এবার পৌষ মেলা আয়োজন করা হবে না। কিন্তু পৌষ উৎসব হবে। ৭-৯ তারিখ পৌষ উপাসনা, পরলোকগত আশ্রমিকদের স্মরণ, মহর্ষি স্মারক বক্তৃতা, প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন, সমাবর্তন এবং খ্রিষ্টোৎসব অনুষ্ঠানগুলি পালিত হবে।
শান্তিনিকেতন ট্রাস্টের পক্ষে অনিল কোনার বলেন, ‘বিশ্বভারতীর প্রতিষ্ঠা দিবসে প্রধানমন্ত্রীকে শান্তিনিকেতনে আসার জন্য বিশ্বভারতী আমন্ত্রন জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আসতে না পারলে ভারচুয়াল ভাবে উপস্থিত থাকবেনে। কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রী এবং রাজ্যপাল উপস্থিত থাকবেন এই অনুষ্ঠানে। করোনা পরিস্থিতি পৌষ মেলা হচ্ছে না’।

Related Articles

Back to top button
Close