fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বধূর উপর অ্যাসিড হামলা

নিজস্ব সংবাদদাতা, কালনা: কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আ্যাসিড হামলা চালিয়ে এক বধূকে প্রাণে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠলো আত্মীয়র বিরুদ্ধে । এই ঘটনা ঘিরে ব্যাপক  চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের কালনা থানার পূর্ব সাতগাছিয়া গ্রামে। গুরুতর জখম অবস্থায় বধূকে উদ্ধার করে ভর্তি করা হয়েছে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। বধূর উপর অ্যাসিড হামলা চালানোর অভিযোগে পুলিশ অভিযুক্ত সাধন বিশ্বাসকে গ্রেফতার করেছে। বুধবার ধৃতকে পেশ করা হয় কালনা মহকুমা আদালতে। বিচারক ধৃতকে ৪ দিন পুলিশ হেপাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

[আরও পড়ুন- ভাতারে ছয় বছরের শিশু কন্যাকে বিস্কুটের লোভ দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে ধৃত প্রৌঢ়]

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে যে , বধূর পরিবারের বসবাস কালনার পূর্ব সাতগাছিয়া গ্রামেই। লকডাউন শথিল হতেই তাঁর স্বামী কর্মসূত্রে বাইরে চলে যান। সেইকারণে  বধূ  পরিবারকে নিয়ে বাড়িতে একই থাকেন। অভিযোগ তার সুযোগ নিয়ে একই এলাকা নিবাসী আত্মীয় সাধন বিশ্বাস বধূকে উত্তক্ত করা ছাড়াও  কু-প্রস্তাব দিত । ইদানিং আবার সাধন ওই বধূকে বিয়ে করার প্রস্তাব দিতে শুরু করে। বধূর অভিযোগ  কোনও প্রস্তাবে তিনি  রাজি না হওয়ায় সাধন তার উপর  ক্ষিপ্ত হয়। মঙ্গলবার দুপুরে হঠাৎতই সাধন তঁদের বাড়িতে এসে অশান্তি শুরু করে । বধূ বলেন ,বচসা চলাকালীন  আচমকা সাধন  তার প্যান্টের পকেট থেকে অ্যাসিড বের করে তাঁর  শরীরে   ঢেলে দেয়। আ্যাসিডে বধূর বাম হাত ও বাম চোখ ঝলসে যায়।

জ্বালা যন্ত্রনায় বধূ চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করলে সাধন সেখান থেকে  পালানোর চেষ্টা করে। তারই মধ্যে বধূর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা বধূর বাড়িতে  ছুটে যান।  তারা অভিযুক্ত সাধন বিশ্বাসকে ধরে ফেলে গনধোলাই দিয়ে কালনা থানার পুলিশের হাতে তুলে দেন। পুলিশ ও স্থানীয়রা  বধূকে উদ্ধার করে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়েগিয়ে ভর্তি করে। অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন বধূর পরিবার।

Related Articles

Back to top button
Close