fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

দেশজুড়ে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৫০ হাজার, আক্রান্ত ২৬ লক্ষের বেশি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউন, সামাজিক দূরত্ববিধি কোনও কিছুতেই বাধ মানছে না সংক্রমণ। প্রতিদিন রূদ্ধশ্বাসে বেড়েই চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েই চলেছে মৃত্যুর সংখ্যাও। আতঙ্কের মাঝেও সামান্য স্বস্তি। গত ২৪ ঘণ্টায় ৬০ হাজারের নিচে নাম দৈনিক সংক্রমণ। তবে একই দিনে দেশে মৃত্যুর সংখ্যা ৫০ হাজারের গণ্ডি পার করল। সোমবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের  দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, একদিনে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫৭ হাজার ৯৮২ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ৯৪১ জনের। তবে এর মধ্যেও স্বস্তি দিচ্ছে সুস্থতার হার।

আগস্টের শুরু থেকেই বিশ্বে রেকর্ড গড়ছিল ভারতের দৈনিক সংক্রমণ। তবে ৪৮ ঘণ্টায় এই সংক্রমণের গ্রাফ সামান্য নিম্নমুখী। রবিবারের সরকারি পরিসংখ্যান বলছে, শনিবার দেশে সংক্রমিত হয়েছিলেন  ৬৩ হাজার ৪৮৯ জন। সেই তুলনায় বেশকিছুটা কমেছে গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণ। রবিবার দেশে সংক্রমিত হয়েছেন ৫৭ হাজার ৯৮২ জন। ফলে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৬ লক্ষ ৪৭ হাজার ৬৬৪ জন। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কোভিড জয়ীর সংখ্যা ও  দৈনিক সংক্রমিতের সংখ্যার সঙ্গে প্রায় সমান।  হিসেব বলেছে, একদিনে দেশে করোনামুক্ত হয়েছেন ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন। ফলে দেশে মোট কোভিডজয়ীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৯ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৪৩ জন। তবে দেশে এখনও সক্রিয় করোনা আক্রান্ত ৬ লক্ষ ৭৬ হাজার ৯০০ জন। দেশে সংক্রমণ বাড়তে থাকলেও  অন্যান্য দেশের তুলনায় মৃত্যুর হার অনেকটাই কম। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৯৪১ জনের। ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫০ হাজার ৯২১ জন।

মহারাষ্ট্রে সংক্রমণ বেনজির তাণ্ডব চালিয়ে যাচ্ছে। গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১১ হাজার ১১১ জন, মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ছয় লক্ষ ছুঁই ছুঁই করছে। এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লক্ষ ৯৫ হাজার ৮৬৫ জন। করোনার ছোবলে আরও ২৮৮ জন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ায় মোট মৃতের সংখ্যা ২০ হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গিয়েছে। মারণ ভাইরাসের বলি হয়েছেন ২০ হাজার ৩৭ জন।

আরও পড়ুন: পাইলটের দাবি মানল কংগ্রেস, দায়িত্ব থেকে সরানো হল অবিনাশ পাণ্ডেকে

কর্নাটকে অবশ্য আগের দিনের তুলনায় করোনা পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৭ হাজার ৪০ জন। মোট শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লক্ষ ২৬ হাজার ৯৬৬ জনে। সংক্রমণ কিছুটা কমলেও মৃতের সংখ্যা বেড়েছে। নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন ১২৪ জন। প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩ হাজার ৯৪৭ জনে। অন্ধ্রপ্রদেশেও মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ গত দু’দিন ধরে নিম্নমুখী। দক্ষিণের রাজ্যটিতে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ১২ জন। যার ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লক্ষ ৮৯ হাজার ৮২৯ জন। করোনা প্রাণ কেড়েছে আরও ৮৮ জনের। এ নিয়ে রাজ্যে প্রাণ হারালেন ২ হাজার ৬৫০ জন।

এই মুহূর্তে দেশবাসী অপেক্ষা করছে ভ্যাকসিনের। ১৫ অগস্ট মোদী লালকেল্লা থেকে জানিয়েছেন, দেশেই তৈরি হচ্ছে ভ্যাক্সিন। বর্তমানে তিনটি ভ্যাক্সিন পরীক্ষামূলক পর্যায়ে আছে। এখন অপেক্ষা শুধু গ্রিন সিগন্যালের। রাশিয়া ভ্যাকসিন তৈরির দাবি জানালেও বিশ্বের বহু দেশ তা মানতে নারাজ। এমনকি হু-ও ভ্যাকসিনের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিনের নাম। তাই দেশীয় ভ্যাকসিন তৈরিতে নজর রয়েছে প্রত্যেকের। মোদী বলেছেন, আত্মনির্ভর ভারতে দেশের মধ্যেই তৈরি হচ্ছে করোনা ভাইরাসের তিনটি ভ্যাকসিন। যা টেস্টিং-এর পর্যায়ে আছে। যত তাড়াতাড়ি বিজ্ঞানীরা সবুজ সংকেত দেবেন তত তাড়াতাড়ি ভ্যাকসিনের উত্‍পাদন শুরু করবে ভারত। প্রচুর পরিমানে ভ্যাক্সিন উত্‍পন্ন করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন তিনি। সেইসঙ্গে তিনি এও জানান যে, কত দ্রুত ভারতের মানুষের কাছে সেই ভ্যাক্সিন পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে, সেই পরিকল্পনা তৈরি হয়ে গিয়েছে ভারতের।

Related Articles

Back to top button
Close