fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গবিনোদনহেডলাইন

অভিনেতা ফকিরদাস কুমারের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ বর্ধমান

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: বাংলা চলচ্চিত্র জগতে এক অন্যতম অভিনেতা ফকিরদাস কুমারের মৃত্যুতে শোকস্তবদ্ধ বর্ধমানের মানুষ। বৃহস্পতিবার জীবনাবসান হয় তাঁর। মহানায়কের সঙ্গেই ১৪টি ছবিতে অভিনয় করেছেন ফকিরদাস কুমার।উত্তম কুমার অভিনীত ছবিতে পরিবারের বিশ্বস্ত সহযোগী কিংবা পুরনো লোকের ভূমিকায় ফকিরদাসের উপস্থিতি থাকতই। মৃত্যুকালে ফকিরকুমারের বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর। এই অভিনেতার মৃত্যুতে বাংলা চলচ্চিত্র জগৎ হারালো মহানায়কের সঙ্গে অভিনয় করা আরও এক অভিনেতাকে।

আরও পড়ুন: বিশিষ্ট অভিনেত্রী সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়কে জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

পূর্ব বর্ধমানের মেমারির সেনপুর গ্রামের বাড়িতে ফকিরদাস কুমার জীবনের শেষ দিনগুলো কাটান। তাঁর তিন পুত্রও অভিনয়ের সঙ্গে যুক্ত। ফকিরদাস কুমার বহু বাংলা, হিন্দি ও ওড়িয়া ছবিতে দক্ষতার সঙ্গে অভিনয় করে গিয়েছেন। পাশাপাশি অসংখ্য নাটক, টেলিফিল্ম, যাত্রা পালাতেও তাঁর সাবলীল অভিনয় মনে রেখেছেন দর্শকেরা।

পরিবার সদস্যরা জানিয়েছেন , অল্প বয়সে কেষ্টযাত্রার মধ্য দিয়ে অভিনয়ে হাতেখড়ি হয়েছিল ফকিরদাসের। পরবর্তী সময়ে রেলে চাকরি করলেও তিনি অভিনয় জগতেও ছিল তাঁর অবাধ বিচরণ।

আরও পড়ুন: স্পেস ফিকশনের গল্প নিয়ে পর্দায় আসছে ‘দিন রাত্রির গল্প’

অভিনয়ের সুবাদেই তিনি উত্তমকুমারের প্রিয়ভাজন হয়ে উঠেছিলেন। একইসঙ্গে তিনি পরিচালক তরুণ মজুমদারেরও কাছের মানুষ হয়ে ছিলেন। দীর্ঘ অভিনয় জীবনে তিনি সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় সুপ্রিয়া দেবী, সুচিত্রা সেন, উৎপল দত্ত, প্রসেনজিৎ, তাপস পাল, দেবশ্রী , শতাব্দী, সন্ধ্যা রায় সহ অনেক অভিনেতা অভিনেত্রীর সঙ্গে কাজ করেছেন।

বেতার শিল্পী হিসেবে তাঁকে প্রশিক্ষিত করে তুলেছিলেন বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র। এতসব কিছুর পরেও শিল্পী হিসেবে যথাযোগ্য মর্যাদা না পাওয়ায় আক্ষেপ ফকিরদাসকে তাড়িয়ে বেড়াত। তবুও জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত ফকিরদাস মহানায়ককের স্মৃতি আর অভিনয়কে আঁকড়ে ধরেই বেঁচেছিলেন।

Related Articles

Back to top button
Close