fbpx
কলকাতাদেশহেডলাইন

‘অন্য দলে যোগ দিন অথবা নিজে পার্টি তৈরি করুন’ দলের ‘বিদ্রোহী’কপিল সিব্বলকে তোপ অধীরের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: বিহার নির্বাচন ও অন্যান্য রাজ্যে উপনির্বাচনে খারাপ ফলের পর সোমবারই বিস্ফোরক মেজাজে দেখা গিয়েছিল প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বর্ষীয়ান আইনজীবী নেতা কপিল সিব্বলকে। হারই কংগ্রেসের অভ্যেস হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে কটাক্ষ করেছিলেন তিনি। কয়েক মাসের ব্যবধানে দু’বার কংগ্রেস নেতৃত্বের সমালোচনা করেছিলেন দলের প্রবীণ নেতা কপিল সিব্বল। বুধবার লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরি বলেন, কপিল সিব্বল দলের সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী ও তাঁর ছেলে রাহুল গান্ধীর ঘনিষ্ঠ ছিলেন। কিছু বলার থাকলে তিনি তাঁদেরই বলতে পারতেন। অধীরবাবুর কথায়, ‘কোনও নেতা যদি ভাবেন কংগ্রেস তাঁর উপযুক্ত দল নয়, তিনি নিজে নতুন পার্টি গড়তে পারেন। অথবা যে পার্টিকে তিনি প্রগতিশীল ভাবেন, যেখানে গেলে তাঁর স্বার্থরক্ষা হবে মনে করেন, সেখানে যোগ দিতে পারেন। কিন্তু তারা এভাবে দলকে অস্বস্তিতে ফেলতে পারেন না।’

অধীর জানান, ‘এর আগেও এই নিয়ে কথা বলেছেন কপিল সিব্বল। তাঁকে দেখে মনে হয়েছে তিনি কংগ্রেসকে নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন। আত্মবিশ্লেষণ চাইছেন। কিন্তু আমরা ওঁর মুখটাই দেখতে পাইনি বিহার, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ কিংবা গুজরাটের ভোটে।’ স্বভাবসুলভ আক্রমণাত্মক মেজাজেই এদিন ছিলেন অধীর। কপিলের উদ্দেশে সোজাসুজি তোপ দেগে তিনি আরও বলেন, ‘যদি কপিল বিহার ও মধ্যপ্রদেশে যেতেন, তাহলে প্রমাণ হয়ে যেত উনি যা বলছেন তা ঠিক। কিন্তু কেবল মুখের কথায় কিছুই হয় না। কাজের কাজ কিছু না করে এই আত্মবিশ্লেষণের কোনও মানে নেই।’

তাঁর কথায়, ‘ওই নেতারা যদি সত্যিই কংগ্রেসকে চাঙ্গা করতে চাইতেন, তাহলে কাজে সেকথা প্রমাণ করতেন। বিহারে ভোটের সময় তাঁরা কি কোনও কাজ করেছেন?’ সোমবার একটি সর্বভারতীয় দৈনিকের সাক্ষাত্‍কারে সিব্বল বলেন, এখন দলের সংগঠনকে চাঙ্গা করে তুলতে হবে। যাঁরা অভিজ্ঞ, রাজনীতি বোঝেন, তাঁরা এই কাজ করবেন। একইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এখন আর ভাবার সময় নেই।’ তাঁর কথায়, ‘অবিলম্বে কয়েকটি স্তরে কিছু কিছু কাজ করতে হবে। সাংগঠনিক কাজ করতে হবে। আরও নানা স্তরে কাজ করতে হবে। আমাদের চাই সক্রিয় ও বিচক্ষণ নেতৃত্ব। সবদিক ভেবে কাজে হাত দিতে হবে।’ পরে তিনি বলেন, ‘কংগ্রেস কর্মীদের বুঝতে হবে, আমাদের দলের অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে।’

আরও পড়ুন: ইতিহাস গড়লেন হিন্দু ছাত্র, ইসলামিক স্টাডিজের প্রবেশিকা পরীক্ষায় শীর্ষস্থান শুভম যাদবের

বিহার ভোটের ব্যর্থতার পরে দলের নেতৃত্বের খোলনলচে বদলানোর পক্ষে সওয়াল করেছেন। মঙ্গলবার এই সব নেতাদের আক্রমণ করেন আরেক কংগ্রেস নেতা সলমন খুরশিদও। গান্ধী পরিবারের ঘনিষ্ঠ এই বর্ষীয়ান নেতার মতে, যাঁরা এই ধরনের কথা বলছেন তাঁরা অতিরিক্ত উদ্বেগে ভুগছেন। ফেসবুকে এক দীর্ঘ পোস্টে তিনি তাঁর মত ব্যক্ত করেন। তিনি জানান, ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তন‌ ঘটাতে হলে কোনও শর্টকাট অবলম্বন করা যাবে না। দলকে দীর্ঘ লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত হওয়ার ডাক দিয়েছেন তিনি। সব মিলিয়ে নির্বাচনে ধারাবাহিক ব্যর্থতার পরে কংগ্রেসের অন্তর্দ্বন্দ্ব এই মুহূর্তে প্রকাশ্যে।

Related Articles

Back to top button
Close