fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আক্রান্ত পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী, প্রতিবাদে অবরুদ্ধ বাসন্তী হাইওয়ে

ফিরোজ আহমেদ, ভাঙড়: আক্রান্ত, অসহায় ব‍্যাক্তি দের দেখতে গিয়ে রাস্তায় দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত হলেন খোদ ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা তথা আহলে সুন্নাত আল জমাতের কর্ণধার আব্বাস সিদ্দিকী।ঘটনার প্রতিবাদে দীর্ঘ কয়েক ঘন্টা রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন পীরজাদার অনুগামীরা।
সোমবার সকাল এগারোটা নাগাদ ভাঙড়ের বোদরা অঞ্চলের কাঁচদিয়া গ্রামে কয়েকজন অসুস্থ, অসহায় যুবকের বাড়িতে যাচ্ছিলেন আব্বাস সিদ্দিকী।ঘটকপুকুর সোনারপুর রোডের বোদরা মোড়ে আব্বাস সিদ্দিকীর গাড়ি সহ তার অনুগামীদের উপরে অতর্কিত আক্রমণ করেন দুষ্কৃতীরা।লাঠি সোটা নিয়ে চলে বেধড়ক মারধর।সংবাদ মাধ্যমের কর্মীদের উপরেও আক্রমণ করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই ঘটকপুকুরে বাসন্তী হাইওয়ে অবরোধ করে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন পীরজাদার অনুগামীরা।দীর্ঘ প্রায় পাঁচ ঘন্টার অবরোধে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে ব‍্যাস্ততম বাসন্তী হাইওয়ে।
সারি সারি গাড়ি দাঁড়িয়ে পড়ে। নাকাল হতে হয় নিত্য যাত্রী সহ সাধারণ মানুষদের।অবরোধ তুলতে পুলিশ প্রশাসন উদ্যোগি হননি বলে অভিযোগ।কার্যত পুলিশ কে নিরব দর্শকদের ভুমিকায় দেখা যায়। বিক্ষোভ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হাতের বাইরে চলে যেতে থাকে।সওকাত মোল্লার গ্রেফতারের দাবিতে সরব হন বিক্ষোভ কারিরা।ভাঙড়বাসীর পাশাপাশি পার্শ্ববর্তী এলাকার মানুষজন বিক্ষোভে সামিল হন।
বিকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ আব্বাস সিদ্দিকীর বার্তা বাহক তথা আহলে সুন্নাত আল জামাতের ভাঙড় শাখার দায়িত্ব প্রাপ্ত নেতা মিন্টু শিকারি ঘটকপুকুরে উপস্থিত হয়ে জনগণ কে আশ্বস্ত করে বলেন, “পীরজাদার উপরে আক্রমণ কারি তৃণমূল বিধায়ক সওকাত মোল্লার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং পুলিশ আশ্বাস দিয়েছে তাঁকে গ্রেফতার করবে।২৪ ঘন্টার মধ্যে পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার না করলে আমরা আবারও আন্দোলনে নামবো।”
এ বিষয়ে আব্বাস সিদ্দিকীর অভিযোগ, “তিনি যখন কাঁচদিয়াতে এক অসহায় ব্যক্তির বাড়িতে যান তখন সওকাত মোল্লার দুষ্কৃতী বাহীনি হামলা করতে শুরু করে। বোমা গুলি চালায়।”আব্বাস সিদ্দিকীর আরো অভিযোগ, “তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাকে হামলা করা ছাড়াও বাড়ির বাইরে তার অনুগামীদের উপরও চড়াও হয়।” আব্বাস সিদ্দিকী অবশ্য এই হামলার পিছনে ক্যানিংয়ের তৃণমূল যুব নেতা ও বিধায়ক শওকত মোল্লার হাত আছে বলে অভিযোগ করেন। যদিও শওকাত মোল্লা সেই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,”আব্বাস সিদ্দিকী এখানে এসেছিল ধর্মীয় উষ্কানী দিতে।গ্রামের মানুষ তাঁর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করেছে।”তিনি আরও বলেন, “আব্বাস সিদ্দিকী আক্রান্ত হননি বা তার গাড়িতে ও আঘাত হয়নি তিনি ভিডিও বার্তায় মিথ্যা কথা বলছে।”

Related Articles

Back to top button
Close